শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন

হিটস্ট্রোকের শিকার সাড়ে ছয় হাজারের বেশি হজযাত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৯ জুন, ২০২৩
হিটস্ট্রোকের শিকার সাড়ে ছয় হাজারের বেশি হজযাত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 

সৌদি আরবে পবিত্র হজ চলাকালীন সময়ে প্রচণ্ড গরমে তিন দিনে হিটস্ট্রোকের শিকার হয়েছেন সাড়ে ৬ হাজারেরও বেশি হজযাত্রী। দেশটির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে গালফ নিউজ।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুন) ভোরে মক্কার কাছে মিনা উপত্যকায় তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছায়। গত ৩৯ দিনে মক্কা ও মদিনায় গরমে অসুস্থ হয়ে পড়া এক লাখ ১১ হাজার ৭৬১ জন হাজিকে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হয়েছে।

এখবারিয়া টিভির সরাসরি সম্প্রচারিত এক ভিডিওতে দেখা যায়, তীব্র গরমে অসুস্থ হয়ে পড়া এক সৌদি নিরাপত্তাকর্মী একজন হাজির চোখে-মুখে ঠান্ডা পানি ছিটাচ্ছেন।

গালফ নিউজকে ড. আবদুল আলী বলেন, গরম ও তাপজনিত কারণে হিটস্ট্রোকের শিকার সব রোগীকে যথাযথ চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ রকম পরিস্থিতির জন্য আমাদের প্রস্তুতি ছিল। সৌদির সরকার আল্লাহর অতিথিদের সর্বোচ্চ সেবাদানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় হজযাত্রীদের সরাসরি সূর্যের আলোর সংস্পর্শ এড়াতে ও বুধবার থেকে শুরু হওয়া শয়তানকে পাথর মারার প্রতীকী অনুষ্ঠান সম্পাদনের জন্য অনুকূল সময় বেছে নেওয়া, পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খাওয়া এবং সূর্য থেকে নিজেদের রক্ষা করার জন্য ছাতা ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যের মরু আবহাওয়ার দেশ সৌদি আরবে শীতকালের ২-৩ মাস ব্যতীত সারা বছরই গরম থাকে। তবে মে-জুন-জুলাই মাসে তাপমাত্রা থাকে সর্বোচ্চ। এই তিন মাসের প্রায় প্রতিদিনই সৌদির গড় তাপমাত্রা থাকে ৪২ ডিগ্রি থেকে ৪৫ ডিগ্রির মধ্যে।

হজ ইসলামের পঞ্চম স্তম্ভ বলে স্বীকৃত। এই ধর্মের বিধান অনুযায়ী প্রত্যেক সামর্থ্যবান ও সক্ষম মুসলিম নরনারীর জন্য জীবনে অন্তত একবার হজ করা অতি আবশ্যিক বা ফরজ।

আরবি চান্দ্র বর্ষপঞ্জির শেষ মাস জিলহজের ৮ তারিখ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় হজ, শেষ হয় ১০ তারিখ পশু কোরবানির মধ্যে দিয়ে। চাঁদের গতিবিধির ওপর ভিত্তি কের আরবি বছর গণনা হওয়ার কারণে প্রতি বছরই ১০ দিন করে এগিয়ে আসে হজের সময়সূচি।

চলতি বছর এমন এক সময়ে পড়েছে হজের মৌসুম, যখন সৌদিতে পুরোপুরি গ্রীষ্মকাল। সৌদি সরকার অবশ্য হজযাত্রীদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতের জন্য মক্কা ও মদিনার ৩২টি হাসপাতাল ও ১৪০টি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ৩২ হাজার ডাক্তার-নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী সার্বক্ষণিকভাবে মোতায়েন রেখেছিল।

জানা গেছে, এ বছর ১৬০টির বেশি দেশের ২০ লাখের অধিক মানুষ হজ পালন করছেন। বাংলাদেশ থেকে মোট এক লাখ ২২ হাজার ২২১ জন হজযাত্রী পবিত্র হজ পালন করতে যাচ্ছেন। এরমধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স বহন করবে অর্ধেক এবং বাকি হজযাত্রীদের বহন করবে সৌদিভিত্তিক উড়োজাহাজ সংস্থা ফ্লাইনাস ও সৌদি এয়ারলাইন্স।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া