বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন

৫০০ টাকার লোভে শিশুকে নদে ধাক্কা, ২০ দিন পর মরদেহ উদ্ধার

জামালপুর জেলা প্রতিনিধি
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪
৫০০ টাকার লোভে শিশুকে নদে ধাক্কা, ২০ দিন পর মরদেহ উদ্ধার

জামালপুর জেলা প্রতিনিধি : 

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় মাত্র ৫০০ টাকার জন্য পাঁচ বছর বয়সী শিশু মুজাহিদকে ধাক্কা দিয়ে ব্রহ্মপুত্র নদে ফেলে দেয় শামীম হোসেন (১৫) নামের এক কিশোর। ঘটনার ২০ দিন পর নদে শিশুটির মরদেহ ভেসে ওঠে।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) সকাল ৯ টার দিকে উপজেলার চরআমখাওয়া ইউনিয়নের সানন্দবাড়ী এলাকার পাটাধোয়া পাড়ায় নদে শিশুটির মরদেহ ভাসতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে পুলিশ ১১টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করে।

নিহত শিশু মুজাহিদ উপজেলার চরআমখাওয়া ইউনিয়নের সানন্দবাড়ী এলাকার বাবুল আক্তারের ছেলে। অভিযুক্ত শামীম একই এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে।

গত ১০ মে পাঁচ বছর বয়সী শিশু মুজাহিদ ৫০০ টাকা নিয়ে বাড়ির পাশের দোকানে কিছু কিনতে যাচ্ছিল। এ সময় তার কাছ থেকে টাকা কেড়ে নিতে কৌশলে তাকে ব্রহ্মপুত্র নদের কাছে ডেকে নেয় এক কিশোর। পরে শিশুটির কাছ থেকে টাকা কেড়ে নিয়ে তাকে ধাক্কা দিয়ে নদে ফেলে দেওয়া হয়। ঘটনা জানাজানি হলে জড়িত থাকার সন্দেহে ১১ মে শামীমকে গ্রেপ্তার করে আদালত পাঠায় পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, মুজাহিদ তার বাবা-মায়ের অগোচরে ৫০০ টাকার একটি নোট নিয়ে বাড়ির পাশের এক দোকানে যায়। সে সময় অভিযুক্ত শামীম মুজাহিদের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনায় বেড়ানোর কথা বলে ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে নিয়ে যায়।

পরে মুজাহিদের কাছ থেকে শামীম জোরপূর্বক টাকা কেড়ে নিয়ে তাকে ধাক্কা দিয়ে নদে ফেলে দেয়। এরপর থেকে মুজাহিদ নিখোঁজ হয়। ২০ দিন পর সেই নদের ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়ার স্থানেই শিশুটির মরদেহ ভেসে উঠে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, নিখোঁজের ২০ দিন পর আজ সকালে শিশুটির লাশ নদে ভেসে ওঠে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় গত ১১ মে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মামলায় কিশোর আসামিকে গ্রেপ্তারের পর আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া