বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন

২১৮ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার জাকের পার্টির

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২৩
২১৮ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার জাকের পার্টির

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াচ্ছে জাকের পার্টি। সারাদেশে ২১৮ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিচ্ছে দলটি।

রোববার (১৭ ডিসেম্বর) সকালে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের জন্য দলটির পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়।

নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন নিশ্চিত করে জাকের পার্টির মহাসচিব শামীম হায়দার জানিয়েছেন, এবার ২১৮টি আসনে প্রার্থী দিয়েছিল জাকের পার্টি । তারা কোনো জোটে না গিয়ে এককভাবে নির্বাচন করছে। নিজেদের প্রতীক গোলাপ ফুল নিয়েই তারা নির্বাচন করবে।

মহাসচিব শামীম হায়দার বলেন, আমরা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি না। কিছু আসনে যাতে পুরো মনোনিবেশ করা যায়, সে জন্য দুইশ’র বেশি আসন থেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেওয়া হচ্ছে।

মহাসচিব আরও বলেন, ভোটের মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে ৭ থেকে ৮টি আসনে তাদের প্রার্থী থাকবেন। প্রার্থীরা নিজ নিজ এলাকার রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের আবেদন করছেন। আজ দুপুরের পর তারা সঠিকভাবে বলতে পারবেন, কোন কোন আসনে তাদের প্রার্থী থাকছেন।

১৯৮৯ সালের ১৪ অক্টোবর আটরশির প্রয়াত পীর মাওলানা মোহাম্মদ হাসমত উল্লাহর হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয় জাকের পার্টির বর্তমান চেয়ারম্যানের দায়িত্বে আছেন মোস্তফা আমীর ফয়সল।

প্রতিষ্ঠার পর থেকেই গোলাপ ফুল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে আসছিল দলটি। ১৯৯৬ সালে ষষ্ঠ ও ২০১৪ সালে দশম জাতীয় নির্বাচন বয়কট করা ছাড়া বাকি পাঁচটি নির্বাচনেই অংশ নেয় জাকের পার্টি। তবে কোনো নির্বাচনেই দলটির কোনো প্রার্থী একটি আসনেও জিততে পারেনি।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নতুনভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যাশা করেছিল দলটি। এজন্য প্রতিটি আসনে আলাদা করে প্রার্থী বাছাই ও ভোটের মাঠ তৈরিতে ৮ মাস ধরে প্রস্তুতি দেয় দলটি। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য তৃতীয় দল হিসেবে সর্বোচ্চ মনোনয়নপত্র সংগ্রহও করেছিল জাকের পার্টির। তবে কোনো অস্বাভাবিক পরিস্থিতি তৈরি হলে ভোট থেকে বিরত থাকবে বলে আগেই জানিয়েছিল দলটি। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন জাকের পার্টির পক্ষ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা এলো।

৭ জানুয়ারিকে ভোটের তারিখ ধরে গত ১৫ নভেম্বর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছিল প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন আজ। বিকেল ৪টার মধ্যে বৈধ প্রার্থীরা রিটার্নিং কার্যালয়ে হাজির হয়ে অথবা বার্তাবাহকের মাধ্যমে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে পারবেন।

চূড়ান্ত প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হবে ১৮ ডিসেম্বর। প্রতীক নিয়েই প্রার্থীরা ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত ভোটের প্রচার চালাতে পারবনে। আর ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে ভোটগ্রহণ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া