বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৬:৩৪ পূর্বাহ্ন

১৫ বছরে অ্যাভিয়েশন সেক্টরের প্রবৃদ্ধি হবে তিনগুণ : বিমান প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : রবিবার, ২৮ মে, ২০২৩
১৫ বছরে অ্যাভিয়েশন সেক্টরের প্রবৃদ্ধি হবে তিনগুণ : বিমান প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

আগামী ১৫ বছরে দেশের অ্যাভিয়েশন সেক্টরের প্রবৃদ্ধি হবে প্রায় তিনগুণ বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

রোববার (২৮ মে) রাজধানীর একটি হোটেলে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের ক্যাডেট পাইলটদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রশিক্ষণে প্রেরণ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী দেশের অ্যাভিয়েশন শিল্পের সময়োপযোগী অবকাঠামোগত উন্নয়ন, কারিগরি ও জন দক্ষতা উন্নয়ন এবং আইন ও নীতি প্রণয়নের ফলে দেশের অ্যাভিয়েশন শিল্প দ্রুত প্রবৃদ্ধি লাভ করছে। গত ১০ বছরে দেশের অ্যাভিয়েশন মার্কেট প্রায় দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি বলেন, অ্যাভিয়েশন সেক্টরের এ বিপুল প্রবৃদ্ধির ধারাকে অব্যাহত রাখতে ও দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখতে অ্যাভিয়েশন শিল্পের প্রতিটি পর্যায়ে আমাদের আরও বেশিসংখ্যক প্রশিক্ষিত ও দক্ষ জনবল প্রয়োজন হবে। দক্ষ জনবলের এ বর্ধিত চাহিদা পূরণে সরকার বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। আরও বেশি প্রশিক্ষিত নারী পাইলট গড়ে তুলতে এরই মধ্যে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নেক্সট জেনারেশন অ্যাভিয়েশন প্রফেশনাল (এনজিএপি) শিক্ষাবৃত্তি’ চালু করেছে।

বিমান প্রতিমন্ত্রী বলেন, এভিয়েশন শিল্পকে সামনে এগিয়ে নিতে সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগের পাশাপাশি বেসরকারি খাতকেও এগিয়ে আসতে হবে। দক্ষ জনবল হিসেবে গড়ে তুলতে প্রশিক্ষণের জন্য শিক্ষার্থী পাইলটদের যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো হচ্ছে— ইউএস-বাংলার এ উদ্যোগ নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের এভিয়েশন শিল্পকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। মহৎ ও যুগান্তকারী এ পদক্ষেপের জন্য ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সকে আমি আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছি। যারা বিদেশে প্রশিক্ষণ নিতে যাচ্ছে, আমি তাদের সর্বাঙ্গীণ সাফল্য কামনা করছি।

প্রশিক্ষণ নিতে যাওয়া শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমার জীবনের শুরু থেকে একটা আগ্রহ ছিল বিমানের যারা পাইলট, তাদের প্রতি। এখনো রাস্তায় যখন এয়ারলাইন্সের গাড়ি যায়, তখনও কৌতূহল নিয়ে মানুষ তাকিয়ে থাকে। আপনারা দেশে ফিরে এমনভাবে পেশাদারিত্ব বজায় রাখবেন যাতে এই সেক্টর কখনো কোনোভাবেই সমালোচিত না হয়। অন্যান্য যানবাহনের তুলনায় বিমানে অনেক টাকা ব্যয় করে একজন যাত্রী যাত্রা করেন। সুতরাং আপনারা তাদেরকে সর্বোচ্চ সেবাটা দেওয়ার চেষ্টা করবেন। যদি এখানে কোনো ধরনের হেরফের হয় তাহলে কিন্তু মানুষের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হতে পারে।

ইউএস বাংলা গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) এম মাইনুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের সদস্য (পরিচালন ও পরিকল্পনা) এয়ার কমোডর সাদেকুর রহমান চৌধুরী, ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের পরিচালক (ফ্লাইট অপারেশন্স) মো. ইলিয়াস মালিক প্রমুখ।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া