বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১০:২৪ পূর্বাহ্ন

স্বতন্ত্র মনোনয়ন কিনলেন এমপি মুরাদ

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি
আপডেট : রবিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২৩
স্বতন্ত্র মনোনয়ন কিনলেন এমপি মুরাদ

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি : 

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) আসন থেকে স্বতন্ত্র পদে মনোনয়নপত্র কিনেছেন ডা. মুরাদ হাসান এমপি।

রোববার (২৬ নভেম্বর) সকালে সাড়ে ৮ হাজার টাকা ব্যাংক চালান দিয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে তার পক্ষে পৌর যুবলীগের সদস্য মোখলেছুর রহমান এ মনোনয়নপত্র নিয়েছেন।

এদিকে আওয়ামী লীগ আজ প্রায় সব আসনে দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। এ তালিকায় ঠাঁই হয়নি ডা. মুরাদের।

মুরাদ হাসানের মনোনয়ন ফরম কেনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাখাওয়াৎ হোসেন।

তিনি জানান, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৪১ জামালপুর-৪ সরিষাবাড়ী আসনে রবিবার দুপুরে স্বতন্ত্র প্রাথীর প্রথম একটি মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে। ৮ হাজার টাকা ব্যাংক চালান দিয়ে নির্বাচন অফিস থেকে মুরাদ হাসানের পক্ষে এটি সংগ্রহ করেন মোখলেছুর রহমান নামে এক ব্যক্তি।

স্থানীয় নেতারা জানান, ২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হয়ে নির্বাচিত হন মুরাদ হাসান। এরপর তিনি দলের নেতাকর্মীদের তোয়াক্কা না করে একক বলয় তৈরি করেন। তাঁর একক আধিপত্য বিস্তারে দলীয় নেতাকর্মী থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন তিনি।

এ ছাড়া ক্ষমতার অপব্যবহারসহ অনৈতিক কর্মের জন্য প্রতিমন্ত্রীসহ উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগ থেকে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। আগামী জাতীয় নির্বাচনে তিনি দলীয় মনোনয়ন পাবেন না এমন গুঞ্জনে জামালপুর-৪ আসনে স্বতন্ত্র পদে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

মোখলেছুর রহমান মিশু বলেন, মুরাদ হাসানের অনুমতি নিয়ে মনোনয়ন ফরম কেনা হয়েছে। এটি দলীয় মনোনয়ন ঘোষণার আগে আওয়ামী লীগের পক্ষেই কেনা হয়েছিল। এখন যেহেতু তিনি দলীয় মনোনয়ন পাননি তাই প্রার্থী হবেন কি না তা সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ আছে।

এ বিষয়ে সংসদ সদস্য মুরাদ হাসান বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমার পক্ষে মনোনয়ন ফরম ক্রয় করা হয়েছে। আমাকে জানিয়েই মনোনয়ন সংগ্রহ করেছে।

উল্লেখ্য, ১৪১, জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে ডা. মুরাদ হাসান নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রথমবার এমপি নির্বাচিত হন। পরে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্যের দায়িত্ব পালন করেন। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জোটগত কারণে আসনটি জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দিলে তিনি মনোনয়নবঞ্চিত হন। ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে তিনি দ্বিতীয়বারের মতো এমপি নির্বাচিত এবং প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। কিন্তু বিতর্কিত অডিও ভাইরাল হওয়ায় প্রথমে মন্ত্রিসভা থেকে বহিষ্কার ও তিনি একে একে দলীয় সব পদ হারান।

এবার আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান হেলালকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া