শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ০৬:২২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত অক্ষয় কুমার তিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শাহবাগে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুতে ইতিবাচক মিয়ানমার সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনে কেউ আইন ভাঙলে বরদাশত করা হবে না : ডিএমপি কমিশনার মিরসরাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় বিএনপি নেতার মৃত্যু যাত্রাবাড়ীতে ময়লার ডাস্টবিনের পাশ থেকে অজ্ঞাতপরিচয়ের এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার জলাবদ্ধতা নিররস কাজ করছেন ডিএনসিসির ৫০০০ পরিচ্ছন্নতাকর্মী শুধু ঢাকা নয়, দুর্নীতি আর লুটপাট করে পুরো দেশকে ডুবিয়ে দিয়েছে সরকার : আমীর খসরু স্বাধীনতাবিরোধীদের প্রেতাত্মারা কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত : আইনমন্ত্রী

সেফটিপিনের দীর্ঘ চেইন তৈরী করে গিনেস বুকে পার্থ

ব্রাক্ষণবাড়িয়া প্রতিনিধি
আপডেট : রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
সেফটিপিনের দীর্ঘ চেইন তৈরী করে গিনেস বুকে পার্থ
গিনেস পদক হাতে পার্থ

এবার গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পেলেন বাংলাদেশের ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার পার্থ। সেফটিপিন দিয়ে পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি দৈর্ঘ্যের চেইন তৈরি করে তিনি বিরল এ সন্মানা পেয়েছেন। গত ১৭ সেপ্টেম্বর ডাকযোগে তার কাছে বিশ্ব রেকর্ডের স্বীকৃতির সনদ এসে পৌঁছায়।

পার্থ জানান, নিজেদের পারিবারিক ব্যবসা দেখাশোনা ও পড়াশোনার পাশাপাশি নতুন কিছু করার তাগিদ অনুভব করে তিনি। গুগলে সার্চ করে জানতে পারেন, ২০১৮ সালে ভারতের গুজরাটে হার্শা নান ও নাভা নান নামের দুই যুবক ১ হাজার ৭৩৩ দশমিক ১ মিটার দৈর্ঘ্যের পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘ চেইন তৈরি করে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম অন্তর্ভুক্ত করেন।

এই রেকর্ড অতিক্রম করে নতুন বিশ্ব রেকর্ডের স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্য নিয়ে ২০১৯ সালের ২৩ জুলাই কাজ শুরু করেন পার্থ চন্দ্র দেব। নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ১ লাখ ৮৭ হাজার ৮২৩টি সেফটিপিন দিয়ে একের পর এক সংযোগ স্থাপন চেইন তৈরি করেন। চেইনটি তৈরি করতে তার ৪৫ দিন ব্যয় হয়েছে। সময় লেগেছে ২৪১ ঘণ্টা ৪২ মিনিট।

আরও পড়ুন : ধরি ইলিশ কিন্তু খাই পাঙ্গাশ

তিনি জানান, সময়ের হিসাব করার জন্য সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ব্যবহার করা হয়েছে। কারো সাহায্য ছাড়া নিজেই ২ হাজার ৪০১ দশমিক ৮৩ মিটার চেইন তৈরির পুরো কাজটি সম্পন্ন করেন তিনি।

গত ২০১৯ সালের ৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার তার তৈরি চেইনটি তার নিজ এলাকা ফান্দাউক পাগল শংকর মন্দির প্রাঙ্গণে প্রদর্শন করেন। সে সময় ফান্দাউক গ্রামের প্রভাষক রাজীব আচার্য্য, পল্লব হালদার এবং সার্ভেয়ার মারজান শাহকে সঙ্গে নিয়ে চেইনটির দৈর্ঘ্যের পরিমাণ করা হয়।

সফলভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করে ইমেইল মারফত তথ্য পাঠানো হয় গিনেস বুক কর্তৃপক্ষের কাছে। পরে চলতি বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি রাতে ৯টা ১ মিনিট গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে পার্থ চন্দ্র দেবের নাম স্থান পায়।

পার্থ বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজে বিএসএস (ডিগ্রি) শেষ বর্ষের ছাত্র।ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নের ফান্দাউক গ্রামের প্রয়াত জগদীশ দেবের ছোট ছেলে তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া