বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৬:৪৪ পূর্বাহ্ন

সরকার যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আরও ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়তে আগ্রহী : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : রবিবার, ৪ জুন, ২০২৩
সরকার যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আরও ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়তে আগ্রহী : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সরকার যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আরও ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়তে আগ্রহী।

রোববার (৪ জুন) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সরকার আমেরিকার সঙ্গে আরও ভালো সম্পর্ক সৃষ্টির পাশাপাশি মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সঙ্গেও বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে চায়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভিসা নীতি সম্পর্কে দেওয়া বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমন ইঙ্গিতই দিয়েছেন।

তিনি বলেন, জিডিপির অনুপাতে ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশই ঘাটতি বাজেট দেয়। বাংলাদেশেও কিছুটা ঘাটতি বাজেট দেওয়া হয়েছে। তবে, সেটি অন্যান্য অনেক দেশের তুলনায় কম।

তথ্যমন্ত্রী বিএনপির সমালোচনা করে বলেন, সরকারের পেছনে আজরাইল দাঁড়িয়ে আছে বলে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যে বক্তব্য দিয়েছেন, তাতে আত্মতুষ্টির কিছু নেই। তাদের সঙ্গে কেবল আজরাইল নয় শয়তানও রয়েছে।
এর আগে, শনিবার তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের নতুন কার্যালয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভিসা নীতি ও স্যাংশন নিয়ে কোনো মাথাব্যথা নেই জানিয়ে দেশকে এগিয়ে নিতে সবাইকে করণীয়টুকু করার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, কে আমাদের ভিসা দেবে না, কে স্যাংশন দেবে, এ নিয়ে মাথাব্যথা করে লাভ নেই। ২০ ঘণ্টা জার্নি করে, আটলান্টিক পার হয়ে আমেরিকা না গেলে কিচ্ছু যায় আসে না। পৃথিবীতে আরও অনেক মহাসাগর আছে, অনেক মহাদেশ আছে। আমরা সেসব মহাদেশের সঙ্গে বন্ধুত্ব করব।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, যারা বিভিন্ন সময় আগুন সন্ত্রাস করেছে তাদের এবং তাদের হুকুম দাতা ও অর্থ দাতাদের তালিকা করা হচ্ছে। এসব তালিকা বিভিন্ন জায়গায় পাঠানো হবে।

তথ্যমন্ত্রী আরো বলেন, আমাদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আরও ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক করতে চাই। সে কারণে পররাষ্ট্রসহ অন্যান্য বিষয়ে অনেক ইতিবাচক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সরকার। মধ্যপ্রাচ্যে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বেড়েছে, ফ্যাশন সচেতনতা বেড়েছে, সেখানে আমাদের বাণিজ্য বাড়ানো প্রয়োজন। আশিয়ানভুক্ত দেশগুলোতে আমাদের বাণিজ্য সম্ভাবনা প্রচুর, সেখানেও আমরা বাণিজ্য বাড়াতে চাই। ওশেনিয়া অঞ্চলে আমাদের বাণিজ্যের সম্ভাবনা প্রচুর, সেখানেও আমরা বাড়াতে চাই, প্রধানমন্ত্রী সে কথাই বলেছেন। আর যারা মার্কিন ভিসানীতি ঘোষণার পর টেনশনে আছেন তাদের টেনশন কমানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী ওই কথা বলেছেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে নানা আলোচনা ও সমালোচনার মধ্যে পেশাদার সমালোচক এবং রাজনৈতিক সমালোচক সবাই একটি কথা বলেছেন, এটি একটি ঘটতি বাজেট। পেশাদার সমালোচকরা একটু খোঁজখবর নিয়ে বললে ভালো হতো। পেশাদার সমালোচকরা সমালোচনা করার আগে গবেষণা করেন এটা তাদের বক্তব্য। তবে কতটুকু গবেষণা হয় সেটা আমি জানি না।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের ডিজিপির অনুপাতে ৫.২ শতাংশ ঘটতি। ভারতে ৫.৯ শতাংশ, যুক্তরাষ্ট্রে ৬ শতাংশ, যুক্তরাজ্যে ৫.৫ শতাংশ। ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যের তুলনায় আমাদের ঘাটতি কিন্তু কম।

তিনি বলেন, যারা রাজনৈতিক সমালোচক, তারা তো বাজেট না পড়েই বক্তব্য দিয়ে দিয়েছেন। আরেকটি বিষয় হচ্ছে এই বাজেটকে জনবান্ধব ও গরিববান্ধব এ জন্যই বলেছি, সরকারের পক্ষ থেকে সরাসরি উপকারভোগীর সংখ্যা ও বিভিন্ন ভাতাধারীর সংখ্যা বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে, ভাতার পরিমাণ বাড়ানোর কথা হয়েছে। সরাসরি দুই কোটি মানুষ সরকারের কাছ থেকে নানাভাবে অর্থসহ নানা সহায়তা পাবে। তাহলে কি এটি গরিববান্ধব বাজেট নয়?


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া