বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১১:১৭ পূর্বাহ্ন

ষষ্ঠবারের মত মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে নৌকার মাঝি এমিলি

মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
আপডেট : রবিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২৩
ষষ্ঠবারের মত মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে নৌকার মাঝি এমিলি

মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি : 

মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে প্রার্থী পরিবর্তন করেনি আওয়ামী লীগ। শক্ত অবস্থানে থাকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলিকে ষষ্ঠবারের মত এই আসনে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ।

রোববার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সেই তালিকায় দেখা যায়, এবার মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলিকে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেয় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

মুন্সিগঞ্জের লৌহজং ও টংগিবাড়ী উপজেলার ২৩টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত মুন্সিগঞ্জ ২ আসনে ভোটারের সংখ্যা ৩ লাখ ৫ হাজার ৯৮৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৫৮ হাজার ৬৩ জন ও নারী ভোটার ১ লাখ ৪৭ হাজার ৯২৪ জন।

২০০৮ সালের প্রতিদ্বন্দীতাপূর্ণ নির্বাচনে বিএনপির হেভিওয়েট প্রার্থী মিজানুর রহমান সিনহাকে হারিয়ে মুন্সিগঞ্জ ২ আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি। এরপর আর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।

২০১৪ এবং ২০১৮ সালেও শক্ত কোন প্রতীদ্বন্দী ছাড়াই আওয়ামী লীগের টিকিট পেয়ে নির্বাচনী বৈতরণী পার হন এমিলি। টানা ৩ মেয়াদে ক্ষমতায় থাকায় এলাকায় বাড়তি জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পেরেছেন এমিলি। তাছাড়া বিএনপি বা নিজ দল থেকে শক্ত কোন প্রতিদ্বন্দীর মোকাবিলা করতে হয়নি এমিলিকে।

সবশেষ ২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগে তৎকালীন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে এলাকায় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে ভালো অবস্থানে রয়েছেন বলে মনে হলেও শেষ পর্যন্ত এমিলিকেই বেছে নেয় আওয়ামী লীগ। ২০২০ সালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মাহবুবে আলম মারা গেলে অনেকটা নির্ভার হয়ে যান এমিলি। এলাকায় তার প্রতিদ্বন্দী একেবারেই শূণ্য হয়ে পড়ে। বর্তমানেও নিজ দল, বিএনপি বা অনান্য দল থেকে শক্ত প্রতিদ্বন্দী নেই এমিলির।

এমিলি প্রথম ১৯৯৬ সালে সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য মনোনীত হয়েছিলেন। সর্বশেষ ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তৃতীয়বারের মত আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে বিএনপির প্রার্থী মিজানুর রহমান সিনহার সাথে ৭০.৩৯% শতাংশ বেশি ভোট পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি।

২০০৮ সালে মোট ভোটের ৫৩ শতাংশ ভোট পেয়ে বিএনপির প্রার্থী মিজানুর রহমান সিনহাকে হারিয়ে আওয়ামী লীগ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এমিলি। ২০১৪ সালে বিএনপি ভোট বর্জন করলে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুব উদ্দিন আহমেদকে হারিয়ে প্রায় ৯৪ শতাংশ ভোট পেয়ে আওয়ামী লীগ থেকে পুনরায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি।

এর আগে ১৯৯১, ১৯৯৬ ফেব্রুয়ারি (ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচন), ১৯৯৬ জুন (সপ্তম) জাতীয় সংসদ নির্বাচন) ও ২০০১ সালে আসনটি বিএনপির দখলে ছিলো।

মুন্সিগঞ্জ ২ আসনের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়েছিলেন ১১ জন। এরা হলেন- বর্তমান সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ লুৎফর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহানা তাহমিনা, টংগিবাড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার কাজী আব্দুল ওয়াহিদ, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক আবু ইউসুফ ফকির, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ঢালী মোয়াজ্জেম হোসেন, লৌহজং উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আলী মোল্লা লিংকন, সোনারং-টংগিবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন লিটন মাঝি, হেদায়েতুল ইসলাম বাদল, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য মিজান সরদার, মহিলা নেত্রী রানু আক্তার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া