শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ০১:০৪ পূর্বাহ্ন

শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নয় আরও অনেক দেশ সরকারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে : নুর

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : শুক্রবার, ২৬ মে, ২০২৩
শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নয় আরও অনেক দেশ সরকারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে : নুর

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নয় আরো অনেক দেশ সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য এ সরকারের উপর নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে। এমনকি জাতিসংঘে আমাদের শান্তিরক্ষী মিশন বন্ধ হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর।

শুক্রবার (২৬ মে) বিকেলে গণ অধিকার পরিষদ, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ কর্তৃক আয়োজিত এক কর্মসূচিতে তিনি এসব কথা বলেন।

দুর্নীতি, দুঃশাসন ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে গণপদযাত্রা আয়োজন করে গণ অধিকার পরিষদ।

নুর বলেন, গত ১৪ বছরে এই সরকার বিরোধীদের উপর দলীয় সন্ত্রাসী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী লেলিয়ে দমন-পীড়ন করে যেভাবে দেশে একদলীয় শাসন কায়েক করেছে তাতে স্পষ্ট যে- এই সরকারের অধীনে কোনোভাবেই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভবপর নয়। এমনকি প্রধানমন্ত্রী যদি পবিত্র কুরআন ছুঁয়ে শপথ করে বলেন, তাতেও জনগণ তাকে আর বিশ্বাস করবে না। ২০১৮ সালে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে সংসদে দাঁড়িয়ে কোটা বাতিলের কথা বললেও পরে সেই কথা রাখেনি। নির্বাচনের আগে গণভবনে জাতীয় নেতৃবৃন্দকে ডেকে সুষ্ঠু নির্বাচনের কথা বললেও জাতির সাথে প্রতারণা করেছে। কাজেই নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার ব্যতীত এই সরকারের অধীনে কোনোভাবেই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভবপর নয়।

তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন ভিসা নীতি বিরোধী দলসমূহের চলমান নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিকে আর শক্তিশালী করেছে। আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বাংলাদেশের সকল বন্ধু প্রতিম রাষ্ট্রসমূহকে বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার পাশে চাই। সরকারকে বলবো, বিরোধী দলের চলমান আন্দোলনে সন্ত্রাস, সহিংসতা, হামলা-মামলা, হয়রানি বন্ধ করে অনতিবিলম্ব সঙ্কট উত্তরণে আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতায় আসুন।

নুরুল হক নুর বলেন, সামরিক বাহিনীর সদস্যদের সৎভাবে ভালো আয়ের সম্মানজনক জায়গা শান্তিরক্ষী মিশন। সেটিও এখন সরকারের কারণে হুমকির মুখে। কারণ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিজ দেশের নাগরিকদের গুম, খুন ও মানবাধিকার লঙ্ঘনে জড়িত থাকার বিষয়টি আলোচনা হচ্ছে। গুটিকয়েক সুবিধাভোগীদের কারণে পুরো প্রতিষ্ঠানের বদনাম হতে পারে না, বাহিনীর গায়ে কলঙ্কের ছাপ লাগতে পারে না। তাই এ বিষয়ে তাদেরকেও ভাবতে হবে।

তিনি বলেন, একজন মেয়র গুন্ডার মতো বলছে যে- একজন চিফ জাস্টিসকেও নামিয়ে দিয়েছিলাম। প্রকারান্তরে সকল বিচারপতিদের হুমকি দিয়েছেন। দুঃখজনক, এখনো এই বিষয়ে বিচারবিভাগের কোনো পদক্ষেপ দেখিনি।

মহানগর দক্ষিণের সদস্য সচিব আহমাদ ইসমাঈল বন্ধন ও উত্তরের সদস্য সচিব জিয়াউর রহমানের সঞ্চালনায় পদযাত্রা পূর্বে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন- গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক হাসান আল মামুন, ফারুক হাসান, বিপ্লব কুমার পোদ্দার, আবু হানিফ, শহিদুল ইসলাম ফাহিম, সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া