সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ১২:১৪ অপরাহ্ন

মুক্তিযোদ্ধার পাশাপাশি সাংবাদিকদের নামেও রাস্তার নামকরণ করা হবে: মেয়র আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : সোমবার, ১৩ মে, ২০২৪
মুক্তিযোদ্ধার পাশাপাশি সাংবাদিকদের নামেও রাস্তার নামকরণ করা হবে: মেয়র আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

মুক্তিযোদ্ধার পাশাপাশি সাংবাদিক, শিল্পী ও সাহিত্যিকদের নামেও রাজধানীর বিভিন্ন সড়কের নামকরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

সোমবার (১৩ মে) ডিএনসিসির নগর ভবনের হল রুমে মেয়র মো. আতিকুল আতিকুল ইসলাম ও কাউন্সিলরদের দায়িত্ব গ্রহণের চার বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, এত দিন রাজধানীর বিভিন্ন সড়কের নাম শুধু মুক্তিযোদ্ধাদের নামে নামকরণ করা হতো। কিন্তু আমি মনে করি আমাদের অনেক বড় বড় সাংবাদিক, শিল্পী ও সাহিত্যিক রয়েছে। যারা অনেক গুণী ব্যক্তি। তাদের নামে সড়কের নামকরণ করলে, তারা যেমন সম্মানিত হবেন, তেমনি আমরা সিটি করপোরেশনও গর্ব বোধ করবে। তাই এখন থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের পাশাপাশি সাংবাদিক, শিল্পী ও সাহিত্যিকদের নামেও সড়কের নামকরণ করা হবে।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণের জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। গত বছর বিটিআই নিয়ে জালিয়াতির ঘটনায় ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকাভুক্ত করেছি। এবার নিজেরাই বিটিআই আমদানি করার উদ্যোগ নিয়েছি। এর মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এ সংক্রান্ত অনুমোদন দিয়েছে।

মেয়র আতিক বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধে ডিএনসিসির ৭২টি ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে প্রতি মাসে ৫০ হাজার টাকা করে দেওয়া হচ্ছে। কাউন্সিলররা এ টাকা ওয়ার্ডে সাধারণ জনগণের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি, র‌্যালি, শিক্ষপ্রতিষ্ঠান ও অংশীজনদের সঙ্গে মতবিনিময় করার জন্য ব্যয় করবে।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধে প্রতিটি যেসব বর্জ্য পানি জমে এডিস মশার লার্ভা জমে ওইসব পণ্য কেনার জন্য কাউন্সিলরদের আলাদা করে টাকা দেওয়া হচ্ছে।’

আতিকুল ইসলাম বলেন, গত বর্ষায় আমরা রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় প্রায় ৯০ হাজার গাছ লাগিয়েছি। আমি সব সময় বলি, গাছ লাগানো সোজা, গাছ পরিচর্যা করা অনেক কঠিন। এজন্য আমরা একজন অ্যাগ্রিকালচার স্পেশালিস্ট ও দুজন বাগান তত্ত্বাবধায়ক নিয়েছি। পাশাপাশি ৪৭ জন মালি নেওয়া প্রক্রিয়াধীন।

তিনি আরও বলেন, আমি মনে করি নগরবাসীকে এগিয়ে আসতে হবে। আমরা যে গাছগুলো লাগাবো, যার বাসা, অফিসের সামনে লাগাই না কেন, তিনি যদি এসে সেই গাছের পরিচর্যা করেন, তাহলে সবচেয়ে বেশি ছায়া উনিই পাবেন। ওনার এখানেই সবচেয়ে বেশি গরম কমবে, তিনিই আরামে থাকবেন। তাই আমি নগরবাসীকে অনুরোধ করবো, আমরা যে গাছ লাগাচ্ছি, নগরবাসী যেন এর যত্ন নেন।

মেয়র বলেন, আমাদের কোন ওয়ার্ডে কী ধরনের হিট আছে, সেটি আমাদের চিফ হিট অফিসার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ তথ্য দেবে। আমরা তাহলে বৈজ্ঞানিক উপায়ে গরম কমাতে ওই ওয়ার্ডে গাছ লাগাতে পারবো।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মীর খায়রুল আলম, সচিব (যুগ্ম সচিব) মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মঈন উদ্দিন, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস চৌধুরী, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ ফিদা হাসান ও বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া