শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ১২:১৮ পূর্বাহ্ন

মুক্তিযুদ্ধে বিরল অবদান রাখাদের সম্মানিত করার পরিকল্পনা রয়েছে : আইজিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই, ২০২৪
মুক্তিযুদ্ধে বিরল অবদান রাখাদের সম্মানিত করার পরিকল্পনা রয়েছে : আইজিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে দেশ স্বাধীন করতে পাকহানাদার বাহিনীর বিপক্ষে যারা বিরল অবদান রেখেছেন আগামীতে তাদের সম্মানিত করার পরিকল্পনা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৫ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে আয়োজিত “সাবেক আইজিপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেক আর্ট গ্যালারি” উদ্বোধন এবং ‘মুক্তিযুদ্ধে পুলিশ: বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আইজিপি বলেন, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের জন্য বিভিন্ন স্মারক সংরক্ষণ ও সম্প্রসারণের জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছি এবং এগুলো সমৃদ্ধ করতে সক্রিয় প্রচেষ্টা রয়েছে। যে কেউ এই সংগ্রহশালাতে নির্ভরযোগ্য এবং স্বাধীনতা যুদ্ধের তথ্য দিতে চান বিশেষ করে পুলিশ সম্পর্কিত কোনো তথ্য হলে আমরা বেশি প্রাধান্য দিয়ে গ্রহণ করব।

তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর নানাভাবে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি করার অপচেষ্টা হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তৎপরতায় মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস সংরক্ষণে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। এরই একটি অন্যতম প্রচেষ্টা বাংলাদেশ পুলিশ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর।

তিনি আরো বলেন, সাবেক আইজিপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেক আর্ট গ্যালারির জন্য চিত্রকল্প খুঁজতে সারা দেশব্যাপী একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করি এবং অনেকে এতে অংশ নিয়ে আর্ট জমা দেয়। সেখান থেকে উল্লেখযোগ্য ৬১টি চিত্রকর্ম আর্ট গ্যালারিত স্থাপন করেছি। পর্যায়ক্রমে এটি আরও সমৃদ্ধ করা হবে।

সাবেক আইজিপির নামে আর্ট গ্যালারি নামকরণের কারণ উল্লেখ করে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, তিনি মুক্তিযুদ্ধের সময় পুলিশ একাডেমিতে কর্মরত ছিলেন। সেখান থেকে দেশমাতৃকার স্বাধীনতার জন্য সমস্ত আরাম-আয়েশ তুচ্ছ করে, পরিবার বিপদগ্রস্ত হতে পারে এমন জেনেও ভারতে গিয়ে সক্রিয়ভাবে স্বাধীনতা যুদ্ধের সংগঠকসহ বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছেন। তার পরিবার অনেক কষ্ট করে জাতির জন্য ত্যাগ শিকার করেছেন।

আইজিপি আরও বলেন, জীবন, পরিবার ও চাকরির মায়া ত্যাগ করে যেসব পুলিশ সদস্য মহান মুক্তিযুদ্ধ অংশগ্রহণ করেছেন, সেসব বীর পুলিশ সদস্যদের সন্মানিত করা বর্তমান পুলিশের দায়িত্ব। এই দায়িত্ব থেকে পুলিশ জাদুঘরে আব্দুল খালেক আর্ট গ্যালারি স্থাপন করা হয়েছে। যাতে করে সারাজীবন তার নামটি এখানে শোভা পায়।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক হিসেবে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ইমেরিটাস অধ্যাপক হাশেম খান। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেব ছিলেন অতিরিক্ত আইজি (প্রশাসন) মো. কামরুল আহসান ও স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) প্রধান অতিরিক্ত আইজি মো. মনিরুল ইসলামসহ প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া