বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন

মহানবীর (সা.) ১৪শ’ বছর আগের যে বাণী সত্যতা পেল বিজ্ঞান

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : রবিবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০২১
মহানবীর (সা.) ১৪শ’ বছর আগের যে বাণী সত্যতা পেল বিজ্ঞান
সংগৃহীত ছবি

দুনিয়ায় যারা আল্লাহর হুকুম এবং তার রাসূল হজরত মুহাম্মদ (স.)-এর দেখানো পথে অনুসরণ করবেন তারা জান্নাতে যাবেন। সেখানে তারা পরম শান্তিতে বসবাস করবেন। যার শুরু আছে, শেষ নেই। জান্নাতিদের জন্য সেখানে সবচেয়ে আকর্ষণীয় নেয়ামত আল্লাহর দিদার দর্শন। জান্নাতের নেয়ামত, সুখ শান্তি, ঐশ্বর্য সম্পর্কে কোরআন ও হাদিসে বহু বর্ণনা রয়েছে। জান্নাতে প্রবেশের জন্য আটটি দরজা রয়েছে। মর্যাদা অনুযায়ী এসব দরজা দিয়ে জান্নাতে প্রবেশ করবেন যারা সফল হয়েছেন।

জান্নাতের আটটি দরজার প্রত্যেকটিতে দুটি করে পাল্লা রয়েছে। নবী কারিম (সা.) দুই পাল্লার মধ্যবর্তী জায়গা কতটা প্রশস্ত সে সম্পর্কে স্পষ্টভাবে জানিয়েছেন।

হাদিসের বিশুদ্ধ গ্রন্থ মুসলিম শরিফের এক হাদিসে নবী (সা.) বলেছেন, জান্নাতের দরজার দুই পাল্লার মাঝখানের প্রশস্ততা মক্কা শরিফ থেকে বাহরাইনের হাজার অথবা মক্কা শরিফ থেকে সিরিয়ার বুশরার দূরত্বের সমান।

আরও পড়ুন : শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে খোলার প্রস্তুতির নির্দেশ

আজ থেকে ১৪শ’ বছর আগে মহানবী (সা.) এ বাণী দিয়েছেন। নবী যদি বলতেন, জান্নাতের দরজার দুই পাল্লার মধ্যবর্তী দূরত্ব মক্কা শরিফ থেকে হাজার পর্যন্ত। তাহলে এ নিয়ে এ মুহূর্তে হয়তো আলোচনা হতো না। তিনি সঙ্গে সঙ্গে বলেছেন, অথবা জান্নাতের দুই দরজার মধ্যবর্তী দূরত্ব মক্কা শরিফ থেকে বুশরার দূরত্বের সমান।

মহানবীর এ কথায় স্পষ্ট যে, মক্কা থেকে হাজার বা মক্কা থেকে বুশরার দূরত্ব সমান। সম্প্রতি স্যাটেলাইট প্রযুক্তিতে পাওয়া ছবিতেও দেখা গেছে মক্কা থেকে বুশরা এবং মক্কা থেকে হাজার একই দূরত্বে অবস্থিত।

রােববার ইসলাম প্র্যাকটসি নামে একটি ফসেবুক পজে তাদরে এক পোস্টে বষিয়টি ‍তুলে ধরছে।ে সখোনে স্যাটলোইটে পাওয়া ছবটিি পোস্ট করা হয়ছে।ে ছবতিে দখো যায়, মক্কা থকেে সরিয়িার বুশরার দূরত্ব এক হাজার ২০০ কলিোমটিার। অন্যদকিে মক্কা শরফি থকেে বাহরাইনরে হাজাররে দূরত্বও এক হাজার ২০০ কলিোমটিার।

৫৭০ খ্রস্টিাব্দে আরবরে মক্কা নগরীতে জন্মগ্রহণ করনে শষে নবী ও রাসূল হজরত মুহাম্মদ (স.)। ৪০ বছর বয়সে তনিি আল্লাহর তরফ থকেে নবুওয়াত লাভ করনে। ৬১০ খ্রস্টিাব্দে তনিি ইসলাম প্রচার শুরু করনে। ৬২২ খ্রস্টিাব্দে তনিি মদনিায় হজিরত করনে। র্দীঘ ২৩ বছর একটু একটু করে প্রয়োজন অনুযায়ী মহানবীর (সা.) ওপর কোরআন নাজলি হয়। ৬৩২ খ্রস্টিাব্দে তনিি ওফাত লাভ করনে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া