মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৯:০৯ অপরাহ্ন

বিএনপির সমর্থক ছিল যত রাজাকার, আল-বদর, আল-শামস : শেখ সেলিম

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : সোমবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২৩
বিএনপির সমর্থক ছিল যত রাজাকার, আল-বদর, আল-শামস : শেখ সেলিম

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

বিএনপির সমর্থক ছিল যত রাজাকার, আল-বদর, আল-শামস বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও গোপালগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

সোমবার (৪ ডিসেম্বর) ঢাকা দক্ষিণ সিটির প্রধান কার্যালয় নগর ভবন প্রাঙ্গণে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, শেখ ফজলুল হক মণির ৮৫তম জন্মদিবসের স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান বাংলাদেশকে পাকিস্তানি ভাবধারায় পরিচালিত করতে বিএনপি গঠন করেছিল। বিএনপির জন্ম কোথা থেকে হয়েছে? না, ক্যান্টনমেন্ট থেকে না। এটা হয়েছে আমরা কি স্বাধীন বাংলাদেশ নাকি পাকিস্তানি ভাবধারায় চলব, সেই চিন্তা-চেতনা থেকে। বিএনপির সমর্থক ছিল যত রাজাকার, আল-বদর, আল-শামস। আরেকটা হলো মাওলানা ভাসানী পার্টি ন্যাপ। জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা গ্রহণ করে। মোস্তাক হলো ন্যাপের সমার্থক। জিয়াউর রহমান যখন পার্টি গঠন করছে তখন ফখরুল ইসলাম, খোকা, মান্না ছাত্র ইউনিয়ন করতো। এটা নিয়েই সে বিএনপি করছে। এদের উদ্দেশ্য হলো বঙ্গবন্ধু ও এদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে দাঁড়ানো।

শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন, মাওলানা ভাসানী ন্যাপের নেতৃত্ব দিয়েছেন। উনি মুরব্বি মানুষ। আমি ওনার সমালোচনা করতে চাই না। কিন্তু বাস্তবতা হলো, চীন যেরকম ইঙ্গিত দিয়েছিল উনি সে মোতাবেক চলতেন। এর আগে পাকিস্তান ও আইয়ুবের প্রশংসাও গেয়েছিলেন। সত্তরের নির্বাচনের আগে জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে মাওলানা ভাসানী ভোলা, লক্ষ্মীপুর, চট্টগ্রামে সাইক্লোনে অজুহাত দেখিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেননি। বঙ্গবন্ধু বলেছিল, যে দশটি জায়গায় সাইক্লোন হয়েছে সেখানে নির্বাচন পরে হবে। কিন্তু নির্বাচন না হলে পাকিস্তান তো আরও বেনিফিটেড হবে। তখন বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, আমি নির্বাচনে যাব। এই বাংলায় কে নেতৃত্বে দেবে? সবাই বড় নেতা। অহিদুজ্জামান বড় নেতা। ছবুর খান বড় নেতা। ফকা চৌধুরী বড় নেতা। শাহ আজিজ বড় নেতা। তারা মুসলিম লীগের সঙ্গে ছিল। ইতিহাস তার নিজস্ব গতিতে চলে।

শেখ সেলিম বলেন, ইতিহাস তার নিজস্ব গতিতে চলে। তোমরা ইলেকশনে আসো বা না আসো। তোমরা সত্তরেও আসো নাই। তাতে কী হয়েছে? মওলানা ভাসানীর ওই দলটা এখন আছে? এই দলই তো নাই। একইভাবে এবার যদি বিএনপি নির্বাচনে না আসে, তাহলে ইনশাআল্লাহ সামনের দিনে তোমাদের নাম-নিশানা-ঠিকানা থাকবে না। ষড়যন্ত্র এখনো চলছে। প্রতিক্রিয়াশীল শক্তি, তারা কিন্তু থেমে নেই। তারা আবার সেই প্রতিবিপ্লবী আঘাত হানার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে চলেছে। আমাদেরকে সোচ্চার থাকতে হবে। সেই প্রতিবিপ্লবী শক্তিকে পরাজিত করা ছাড়া কোন উপায় নেই।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের সভাপতিত্বে এবং করপোরেশনের সচিব আকরামুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির, করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া