মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০২:৫৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শপথ নিলেন কুমিল্লা সিটির মেয়র রিফাত ভারতীয় সিরিয়াল ‘খড়কুটো’ বন্ধ হওয়ার পথে! সৌদি আরব পৌঁছেছেন ৫৮ হাজার ১১৮ জন হজযাত্রী বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় ৭০২ জনের মৃত্যু তাহলে টি-টুয়েন্টিকে বিদায় বলে দিলেন তামিম? আগাম টিকিটে ট্রেনে ঈদযাত্রা শুরু বিআরটিসির ‘ঈদ স্পেশাল সার্ভিস’ চালু ঈদযাত্রায় ডিএমপি ট্রাফিক পুলিশের ১২ নির্দেশনা বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ৫৬৩ ট্রেনের টিকিট পেতে চরম দুর্ভোগে যাত্রীরা পদ্মাসেতু পার হয়ে প্রথম টুঙ্গিপাড়ায় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে আসছেন প্রিন্স চার্লস সবাইকে ছাড়িয়ে সাকিব গড়লেন নতুন রেকর্ড সাকিবের বিধ্বংসী ইনিংসের পরও বড় হার বাংলাদেশের জেনে নিন টলি সুন্দরীদের কার উচ্চতা কত মোটরসাইকেল চলাচলে নতুন বিধিনিষেধ পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচলের সম্ভাবনা কম: মন্ত্রিপরিষদ সচিব ভাড়া কমিয়েও যাত্রী পাচ্ছে না লঞ্চ ঝালকাঠিতে মাটি খুড়তেই বেরিয়ে এলো গুপ্তধন ট্রেনের আগাম টিকিট কিনতে তৃতীয় দিনের ‘যুদ্ধ’

বন্যা মোকাবিলায় সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

রিপোর্টারের নাম
আপডেট : মঙ্গলবার, ২১ জুন, ২০২২
বন্যা মোকাবিলায় সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী
সংগৃৃহীত ছবি

বন্যা নিয়ে ঘাবড়ানোর কিছু নেই জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করে সহায়তা দেওয়া হবে।

সিলেট বিভাগের সাম্প্রতিক ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি পর্যালোচনা ও বন্যাদুর্গতদের পুর্নবাসন নিয়ে মঙ্গলবার (২১ জুন) সিলেট সার্কিট হাউজে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে সকালে হেলিকপ্টারে করে নেত্রকোণা, সুনামগঞ্জ সিলেটের বন্যা দুর্গত এলাকার পরিস্থিতি ঘুরে দেখেন। পরে সিলেট সার্কিট হাউজে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের এবং স্থানীয় প্রশাসনকে বন্যা মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশের মানুষকে এই বন্যা-প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গে লড়াই করে বাঁচার মানসিকতা থাকতে হবে। সে কারণে আমাদের অবকাঠামোগত যত উন্নয়ন হবে সেগুলো মাথায় রেখে করতে হবে।

তিনি বলেন, সিলেট অঞ্চলে মাটি উঁচু করে আর কোনো রাস্তা করা হবে না, ‘এলিভেটেড’ রাস্তা হবে। এলিভেটেড রাস্তা হলে সেটা সহজে নষ্ট হয় না, বন্যার মত দুর্যোগে যাতায়াতেরও সুবিধা হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি আগে থেকেই আমার কার্যালয়ে বন্যার বিষয়ে প্রস্তুতির জন্য বলে রেখেছিলাম। প্রায় এক-দেড় মাস আগে থেকেই সবাইকে বলতাম, এবার খুব বড় একটা বন্যা আসবে, প্রস্তুতি নেতে। প্রাকৃতিক একটা পরিস্থিতি দেখে আন্দাজ করা যায়। সেটা দেখেই আমি সবসময় বলছি এবার বড় বন্যা আসবে। এসময় ৯৮ এবং ৮৮ সালের দীর্ঘস্থায়ী বন্যার কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। ১০ বছর ১২ বছরের মধ্যে এমন বন্যা আসে। এখন রাস্তাঘাট অনেক উন্নত হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, খাদ্যমন্ত্রীকে আগেই বলেছিলাম, এবার কিন্তু বন্যা আসবে। বন্যায় খাদ্যগুদামে পানি ঢুকতে পারে। সেজন্য পানি সেচের ব্যবস্থা রাখতে হবে, পাম্প রাখতে হবে। বিশেষ করে খাদ্যগুদাম এবং সার রক্ষা করতে হবে। আবার খাদ্যগুদাম থেকে খাদ্য যাবে বের করা যায়। এগুলো আমাদের সব সময় করে রাখতে হবে।

এবারের বন্যা অনেক দেরিতে এসেছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৯৮ সালের সেই দীর্ঘস্থায়ী বন্যার পর…। বন্যা এলে পরপর আসে। ৫৫ ও ৫৬ সালে দীর্ঘস্থায়ী বন্যার পর…। এবার সিলেট বিভাগে পরপর তিনবার বন্যা হয়েছে। এটা অস্বাভাবিক পরিস্থিতি। প্রতিবার নতুন নুতুন জায়গায় প্লাবিত হয়েছে। আমাদের যে ফসল বা যা কিছু ক্ষতি হয়েছে… আমরা গতকালকেও মিটিংয়ে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

এসময় বৃষ্টি পানি ধরে রাখার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বন্যার সময় নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন, এর আগে নৌকায় করে আমাকে বিভিন্ন জনসভায় যেতে হয়েছে। কানাইঘাট, শাল্লা নৌকা করে গেছি। সে সব অভিজ্ঞতা রয়েছে। তাহেরপুরে তো জনসভা মঞ্চেই পানি হয়ে গিয়েছিল। নৌকায় করে গিয়ে মিটিং করেছিলাম।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া

%d bloggers like this:
%d bloggers like this: