শনিবার, ২৫ মার্চ ২০২৩, ০৭:০০ পূর্বাহ্ন

বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর নির্মাণকাজ ৫৮ ভাগ সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : শনিবার, ১৮ মার্চ, ২০২৩
বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর নির্মাণকাজ ৫৮ ভাগ সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

যমুনায় ওপর এগিয়ে চলেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতুর নির্মাণ কাজ। এরইমধ্যে সেতুর ৫৮ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। ৫০টি পিলারের মধ্যে ২২টির কাজ শেষ। ৪৯টির মধ্যে ১৩টি সুপার স্ট্র্রাকচার বসে গেছে। সেতুর কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলায় উৎসাহী সিরাজগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চলের বিনিয়োগকারীসহ স্থানীয়রা।

ঢাকার সঙ্গে উত্তর ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের রেল যোগাযোগের সূচনা ১৯৯৮ সালে বঙ্গবন্ধু সেতু চালুর মধ্য দিয়ে। ২০০৮ সালে সেতুতে ফাটলের কারণে কমে ট্রেনের গতি। গড়ে প্রতিদিন ৩৮টি ট্রেন ঘন্টায় মাত্র ২০ কিলোমিটার গতিতে চলছে। এতে সময় অপচয়ের সঙ্গে বাড়ছে সিডিউল বিপর্যয়।

এ অবস্থায় যমুনায় আরেকটি মেগা প্রকল্প। বঙ্গবন্ধু সেতুর উত্তর পাশেই নির্মাণ হচ্ছে ৪ দশমিক ৮ কিলোমিটার দৈর্ঘের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলসেতু।

সেতুর নির্মাণ কাজে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৬ হাজার ৭৮০ কোটি ৯৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা। প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে ২০২৪ সালের ডিসেম্বর মাসে।

বঙ্গবন্ধু-রেল-সেতুর-৫৮-ভাগ-কাজ-শেষ

প্রকৌশলী অমুল্য সুত্রধর বলেন, রেল ব্রিজে কাজ করতে পেরে গর্ববোধ করছি। এই ব্রিজ হলে সারা উত্তরবঙ্গসহ বাংলাদেশের মানুষ উপকৃত হবে। ১৩টি গাডার বা সুপার স্ট্রাকচার বসানোর পর দৃশ্যমান এখন সোয়া কিলোমিটার।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণ প্রকল্পের পরিচালক আল ফাত্তাহ মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান বলেন, যে গতিতে কাজ চলছে তাতে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই শেষ হবে বলে আশা করছি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করার দাবি স্থানীয়দের।

সয়দাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নবিদুল ইসলাম বলেন, রেলসেতুর কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। প্রধানমন্ত্রীকে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই।

বেলকুচি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সাজেদুল বলেন, আমরা উত্তরবঙ্গবাসী সফলতার মুখ দেখতে পাচ্ছি।

সেতুটি যোগাযোগসহ উত্তরাঞ্চলে শিল্পের প্রসার ও বাণিজ্যে নতুন মাত্রা যোগ হবে বলে মনে করছেন বিনিয়োগকারীরা।

সিরাজগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সূর্য বলেন, যমুনার বুকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেল সেতু নির্মাণের মাধ্যমে আমরা নতুন আশার আলো দেখছি। কেননা ট্রেনে মালামাল বহন অনেকটা সহজ ও সাশ্রয়ী। এতে সিরাজগঞ্জ ও উত্তরবঙ্গের ব্যবসায়ীরা লাভবান হবেন।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২৯ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই রেলসেতুর নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। জাপান এবং বাংলাদেশ সরকারের যৌথ অর্থায়নে রেলসেতু প্রকল্পটির বাস্তবায়ন করছে জাইকা। কাজের গতি অব্যাহত থাকলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সেতুটি উদ্বোধন করা সম্ভব হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া

%d bloggers like this:
%d bloggers like this: