শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০১:০০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
হাইকোর্টে রিট করলেন তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনার টিকা নিলেন চিরনিদ্রায় শায়িত বীর মুক্তিযোদ্ধা এইচ টি ইমাম অর্ধেক পুরুষ অর্ধেক নারীর আদালে আজব পাখি প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী শ্রেয়া ঘোষাল মা হচ্ছেন স্কুটি চালিয়ে বর নিয়ে শ্বশুরবাড়ি গেলেন নববধূ (ভিডিও) নারী কেলেঙ্কারি: সেই ডিসির বেতন অর্ধেকে নেমে গেল বাবা সারারাত পাহারা দিলেন ছেলের প্রেমিকাকে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমামের ইন্তেকাল ৯৯৯-এ কল করবেন যেসব বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমামের অবস্থা সংকটাপন্ন ব্যয়বহুল মহাসড়কগুলো টেকসই হচ্ছে না যে কারণে…. আদমদীঘিতে খাল খননে অনিয়ম দুর্নীতি ৫৬.৯৪% গড় অগ্রগতি মেট্রো রেল প্রকল্পে রেলে ১২ হাজার লোক নিয়োগে শিগগিরই বিজ্ঞপ্তি বেলুনের মধ্যে ঢুকে চকলেট সাজে প্রিয়াঙ্কা ড্যাশ-৮ এর ‘আকাশ তরী’এখন ঢাকায় সব খাতে উন্নয়ন সম্ভব হচ্ছে দীর্ঘদিন সরকারে থাকায় সবার জন্য ঘর এবং বিদ্যুত মুজিববর্ষের মধ্যেই পানি নেই নদ-নদীর বুকে!

প্রথম যৌন দৃশ্যের শুটিংয়ে কেঁদেছিলেন সালমা হায়েক

বিনোদন ডেস্ক
আপডেট : বুধবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
প্রথম যৌন দৃশ্যের শুটিংয়ে কেঁদেছিলেন সালমা হায়েক
সালমা হায়েক

জনপ্রিয় হলিউড অভিনেত্রী সালমা হায়েক। সুন্দর চেহারা আর আকর্ষণীয় ফিগারের অধিকারী মেক্সিকান-লেবানিজ নায়িকা সবচেয়ে আলোচিত কাজ ফ্রিদা মুভিতে মেক্সিকান চিত্রশিল্পী ফ্রিদা কাহলোর ভূমিকায় অভিনয়। তবে বাংলাদেশে তিনি ডেসপেরাডো মুভি দিয়ে লাখো তরুণের হৃদয় জয় করেছেন।

এবার সেই ডেসপেরাডো মুভিতে জনপ্রিয় নায়ক এন্টনিও ভ্যান্ডারেসের বিপরীতে বহুল আলোচিত যৌন দৃশ্যে অভিনয় করা নিয়ে মুখ খুলেছেন সালমা হায়েক।

সোমবার অনুষ্ঠিত জনপ্রিয় সাপ্তাহিক পডকাস্ট আর্মচেয়ার এক্সপার্টে সালমা হায়েক বলেন, মুভিতে চুক্তিবদ্ধ হবার সময় আমি জানতান না তাতে যৌন দৃশ্য রয়েছে। মুভির কাজ শুরু হওয়ার পরই আমি সেটা জানতে পারি।

ছবির পরিচালক রদ্রিগেজ আমার ভাইয়ের মতো আর তার (তখনকার) স্ত্রী এলিজাবেথও আমার বেস্ট ফ্রেন্ড ছিল। বলা হয়, ওই দৃশ্যের শুটিংয়ের সময় শুধু আমরা চারজনই সেটে থাকবো।

স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, যখন আমরা শুটিং শুরু করতে যাচ্ছিলাম, তখন আমি কাঁদতে শুরু করি। আমি জানি না যে আমি কি এটা করতে পারবো! আমার ভয় করছে! যেসব কারণে ভয় পেয়েছিলাম তার মধ্যে অন্যতম হল ভ্যান্ডারেস।

সে ছিল নিপাট ভদ্রলোক এবং খুব ভালো এবং আমরা এখনও খুব কাছের বন্ধু। কিন্তু সে খুব ফ্রি ছিল। এটি আমাকে ভয় পাইয়ে দেয় যে তার জন্য এসব করা কোন ব্যাপারই না। আমি কাঁদতে শুরু করেছিলাম এবং তার ভাবখানা ছিল ‘ওহ গড! তোমার কারণে আমার খুব খারাপ লাগছে। আমি এতটাই বিব্রত হয়েছিলাম যে আমি কাঁদছিলাম।

সালমা হায়েক বলতে থাকেন, আমি তোয়ালেটা ছাড়তে দিচ্ছিলাম না। জানতাম, তারা আমাকে হাসানোর চেষ্টা করবে। আমি দুই সেকেন্ডের জন্য তোয়ালে খুলবো এবং আবার কান্নাকাটি শুরু করবো, এমন একটা অবস্থা। যাই হোক, আমরা কাজটা করি। শেষে আমরা ওই মুহুর্তে যা করা সম্ভব তার সেরাটাই করেছি।

আসলে আপনি যখন নিজের মধ্যে থাকেন না, তখন আপনি এটা করতে পারেন। কিন্তু আমি আমার বাবা এবং ভাইয়ের কথা চিন্তা করছিলাম, তারা কি এটা দেখতে পাবে? তাদের কি লোকে টিজ করবে? ছেলেদের ক্ষেত্রে তা হয় না। বাবারা হয়তো বলেন, হ্যাঁ! এই যে, ও আমার ছেলে!

বাবা এবং ভাইকে নিয়ে ছবিটি দেখতে যাবার কথা স্মরণ করে সালমা হায়েক বলেন, তারা ওই দৃশ্যটির সময় থিয়েটার থেকে বেরিয়ে যায় এবং সেটা শেষ হয়ে গেলে আবার ফিরে আসে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া

%d bloggers like this:
%d bloggers like this: