বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৮:৫৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করুন: বৌদ্ধ নেতাদের রাষ্ট্রপতি সাংবাদিকরা সহায়তা করলে আদালতে মামলা কমবে : প্রধান বিচারপতি গণতন্ত্রের জন্য যে দেশ স্বাধীন হয়েছে, সে দেশে এখন আর গণতন্ত্র নেই : শামসুজ্জামান দুদু লু এলেন, ভাবলাম সম্পর্ক ভালো করতে চায় কিন্তু নিশিরাতে স্যাংশন দিলো: কাদের ১ মিনিটের ‘ঝড়’ তুললেন মাহি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচের আম্পায়ার বাংলাদেশি সৈকত অবাধ্য পর্যটক সামলাতে দেওয়াল তুলছে জাপান হিমালয়সহ পাহাড়-পর্বত রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: পরিবেশমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই : স্পিকার নির্বাচনে জিতে দুধ দিয়ে গোসল করলেন চেয়ারম্যান!

পরীক্ষার ফল এক, বিষয়ভিত্তিক নম্বরও অভিন্ন যমজ বোনের

যোগাযোগ ডেস্ক
আপডেট : শুক্রবার, ১৭ জুলাই, ২০২০

ছোটবেলা থেকেই তাদের কেউ দেখলে আলাদাভাবে চিহ্নিত করতে পারতো না। ভারতের নয়ডার দুই যমজ বোন মানসী ও মান্য এখনো সবাইকে চমকে দেন, একেবারে একই রকম মুখ ও চেহারা নিয়ে।
তবে আসল চমক অন্যখানে। কেউ স্বপ্নেও ভাবতে পারেনি, পরীক্ষার ফলাফলে একই নম্বর পাবে তারা। এইচএসসির ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে সম্প্রতি। আর তাতেই অবাক দুই বোন।

মানসী ও মান্য দু’জনেরই প্রাপ্ত নম্বর একই। দু’জনেই ৯৫.৮ শতাংশ নম্বর পেয়েছে। অবাক লাগলেও, তাদের নম্বরপত্রে সেটাই উল্লেখ আছে। ভারতের গ্রেটার নয়ডার অ্যাস্টর পাবলিক স্কুলের ছাত্রী মানসী ও মান্য যে শুধু মোট শতকরা নম্বর একই পেয়েছে তা নয়। তারা একই নম্বর পেয়েছে প্রতিটি বিষয়েও।

জানা গেছে, ইংরেজিতে ৯৮, কম্পিউটার সায়েন্সে ৯৮, পদার্থবিজ্ঞানে ৯৫, রাসায়নে এবং শারীরিক শিক্ষায় ৯৫ নম্বর করে পেয়েছে তারা। কারো এক নম্বর বেশি নয়, কারো কম নয়।

মানসী জানিয়েছেন, পরীক্ষা দু’জনেরই ভালো হয়েছিল, ভালো নম্বর আশাও করেছিলাম। কিন্তু বোন মান্য বেশি নম্বর পাবে ভেবেছিলাম।
মান্য জানিয়েছেন, এর আগে কখনো কোনো পরীক্ষায় এমন একই নম্বর পাইনি। তবে বছর দুয়েক আগে একবার খবরে দেখেছিলাম যমজ ভাই-বোনের এমন অভিন্ন নম্বর পাওয়ার কথা। তেমনটা যে আমার জীবনের বড় পরীক্ষাতেও ঘটে যাবে, তা ভাবতেও পারিনি।

মানসী ও মান্য দু’জনেই ভবিষ্যতে প্রকৌশলী হতে চায়। প্রস্তুতিও নিচ্ছিল তারা। কিন্তু করোনার কারণে পিছিয়ে গিয়ে, সেপ্টেম্বরে হতে পারে পরীক্ষা। সেদিকেই চোখ তাদের।

এই সাফল্যে খুশি তাদের পরিবারও। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছে, ২০০৩ সালের ৩ মার্চে দুই বোন যখন জন্মগ্রহণ করে, তখন ৯ মিনিটের ব্যবধান ছাড়া আর কোনো পার্থক্য ছিল না দুই বোনের মধ্যে। বরাবরই তাদের আকৃতি, গঠন থেকে শুরু করে প্রিয় খাবারের তালিকা, খেলা সবই এক। দুই বোনই ব্যাডমিন্টন খেলতে ভালোবাসে। পরীক্ষার ফলাফলে দুই বোনের একই নম্বরও চমকে দিয়েছে সকলকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া