শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ০২:২০ পূর্বাহ্ন

নির্বাচনকালীন ছোট সরকার কবে ঠিক করবেন প্রধানমন্ত্রী : আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : রবিবার, ৪ জুন, ২০২৩
নির্বাচনকালীন ছোট সরকার কবে ঠিক করবেন প্রধানমন্ত্রী : আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

নির্বাচনকালীন একটি ছোট সরকার গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। সেই সরকার কবে গঠন করা হবে সেটা প্রধানমন্ত্রী ঠিক করবেন বলেও জানান তিনি।

রোববার (৪ জুন) দুপুরে দুর্নীতির মামলা বিচারকাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত বিচারকদের ১৫০তম রিফ্রেশার কোর্সের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এই কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে নির্বাচনকালীন সরকার হবে। আর সেটা কবে হবে তা ঠিক করবেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী যখন মনে করবেন তিনি একটি ছোট সরকার করতে চান, নির্বাচনকালীন সরকার করতে চান, তখন তিনি ছোট পরিসরে নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করবেন। এ ব্যাপারে কোনো অস্পষ্টতার সুযোগ নেই।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সেপ্টেম্বর নাগাদ সংশোধন করা হবে বলে জানান আইনমন্ত্রী। তিনি বলেন, এই আইনের কিছু অপব্যবহার হয়েছে। সেটা আমরা স্বীকার করি।

দুর্নীতি দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রার সবচেয়ে বড় বাধা উল্লেখ করে আইনমন্ত্রী বলেন, সরকার দুর্নীতিকে বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত করতে চায়। তাই বিচারকদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সঠিক রায় দিতে হবে।

আইনমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতিবাজরাও দিন দিন কৌশলী হচ্ছে। তাই বিচারকদেরও বিচক্ষণ হতে হবে। তাছাড়া মামলার জট কমাতে হবে। এসব ব্যাপারে সরকার নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে।

আইনমন্ত্রী বলেন, সংসদীয় গণতন্ত্রের ভিত্তিতে আমাদের রাষ্ট্র পরিচালিত হয়। প্রধানমন্ত্রী চাইলে নির্বাচনকালীন একটি ছোট সরকার গঠন করবেন। আমার মনে হয়, এ ব্যাপারে কোনো অস্পষ্টতা নেই। কারণ প্রধানমন্ত্রী এরইমধ্যে বলে দিয়েছেন নির্বাচনকালীন সরকারের কথা। সেই সরকারের কারা থাকতে পারেন, সে রূপরেখাও তিনি দিয়েছেন।

ভোট কেন্দ্রে গণ্ডগোল ও এ কারণে পুরো আসনের নির্বাচন বাতিল প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, ৯১ ধারার (এ) পুরো নির্বাচন কমিশন বাতিলের কথাটি উল্লেখ আছে। একটা নির্বাচনী এলাকায় অনেকগুলো পোলিং সেন্টার থাকে। সেগুলোর একটিতে যদি গণ্ডগোল হয়, তাহলেও পুরো নির্বাচনটা কমিশন চাইলে বাতিল করে দিতে পারবে। একটা বা একাধিক পোলিং সেন্টারে যদি গণ্ডগোল হয় সেখানে নির্বাচন বাতিল করে নতুন করে দেওয়া যাবে।

নিজের নির্বাচনী এলাকার উদাহরণ দিয়ে আনিসুল হক বলেন, এখন নির্বাচনী কেন্দ্র ১২০টি। যদি ১০ টিতে গণ্ডগোল হয় নির্বাচন বাতিল করে নতুন করে দেওয়া যাবে। ওই দশটির নির্বাচন হওয়ার জন্য বাকি ১১০টিতে ভোট বাতিল করা অগণতান্ত্রিক, অসাংবিধানিক এবং মানুষকে বেইজ্জত করা।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা। উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের সচিব গোলাম সারওয়ার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া