বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৬:০৫ পূর্বাহ্ন

নগরের উন্নয়নে গাছ কাটা যাবে না: মেয়র আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : মঙ্গলবার, ৬ জুন, ২০২৩
নগরের উন্নয়নে গাছ কাটা যাবে না: মেয়র আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, নগরের উন্নয়নের জন্যে গাছ কাটা যাবে না। আমরা (উত্তর সিটি করপোরেশন) দুই লাখ গাছ লাগাব, এজন্য বনবিভাগকে সম্পৃক্ত করেছি। এ পদক্ষেপের মাধ্যমে বায়ুদূষণ কমবে, তাপদাহ কমবে, ঢাকা মহানগরীতে জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ী কার্বন নিঃসরণ কমানো সম্ভব হবে।

মঙ্গলবার (০৬ জুন) রাজধানীর তেজগাঁওয়ে মেয়র আনিসুল হক সড়কে দুই লাখ গাছ লাগানোর কর্মসূচির উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।

মেয়র আতিক বলেন, গাছের পরিচর্যার জন্যে ঢাকার উত্তর সিটি করপোরেশনে ১০০ জন মালি নিয়োগ দেওয়া হবে। এ পদে অনেক শিক্ষিত ছেলেরাও আবেদন করছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীও রয়েছে। কারণ তারা পরিবেশ রক্ষার্থে কাজ করতে চায়।

এ সময় রাজউকের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মেয়র বলেন, নিয়ম অনুযায়ী ৩৫ শতাংশ জায়গা খালি রেখে বাড়ি-স্থাপনা নির্মাণ করতে হবে। প্রতিটি বাড়ির এক কাঠায় একটি গাছ লাগাতে পারি। তাহলে ঢাকা সবুজে ভরে যাবে।

মেয়র বলেন, ডিএনসিসি এলাকার সব রাস্তা ও ফুটপাতে গাছ লাগানো হবে। কোনও জায়গা খালি রাখতে চাই না। ফুটপাতে ছাতিম, বকুল, কাঠবাদাম, কৃষ্ণচূড়া, সোনালু। সড়কের মিডিয়ানে কাঁটা মেহেদি, রংগন, করবী ও বাগানবিলাস, বামন জারুল, রসকাউ, খালের পাশে বিভিন্ন ধরনের ফলদ যেমন আম, জাম, কাঁঠাল এবং ঔষধি গাছ লাগানো হবে বলেও জানান মেয়র।

তিনি আরও বলেন, নগরে কোনও পাখি নাই। আমরা বন বিভাগের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে রসকাউ লাগাচ্ছি। রসকাউ ফলটা পাখিদের জন্য খুবই প্রিয়। ক্লিনিং, গ্রিনিং ও ফিডিং এই তিনটিকে বিবেচনায় নিয়ে গাছ লাগানো হবে।

তিনি বলেন, ‘সবুজে বাস, বারো মাস’ এই স্লোগানের মাধ্যমে আমরা আজকে বৃক্ষরোপণ শুরু করলাম। আমি নগরবাসীকে আহ্বান করছি যার যার বাড়ির সামনে ফাঁকা জায়গায় গাছ লাগাবেন। আমি রাজউকের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাই। ‘প্রতিটি বাড়িতে এক কাঠায় অন্তত একটি গাছ’ এই উদ্যোগ যেন রাজউক অবিলম্বে বাস্তবায়ন করে।

লাগানো গাছকে লালনের জন্য এই প্রথমবারের মতো ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ১০০ জন মালি নিয়োগ দেবে জানিয়ে মেয়র বলেন, একেকজন মালিকে এক কিলোমিটারের দায়িত্ব দেওয়া হবে। এক কিলোমিটারের মধ্যে যত গাছ আছে, সেসব গাছের রিপোর্ট তারা আমাদের দেবেন। আমরা একটি জিআইএস ম্যাপ তৈরি করেছি। যেটির মাধ্যমে জায়গা নির্বাচন, গাছ মনিটরিং এগুলো করা হবে।

সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে ডিএনসিসি মেয়র বলেন, গাছের বিষয়ে আমার ক্লিয়ার ম্যাসেজ। আমি বারবার বলেছি গাছ কাটলে কোনও ছাড় দেওয়া হবে না। সড়কের বিদ্যমান গাছগুলো না কেটেই উন্নয়নকাজ করার নির্দেশ দিয়েছি।

আতিকুল বলেন, সিটি কর্পোরেশন নিজেদের ইচ্ছা মতো কোন গাছ লাগাচ্ছি না। প্রত্যেকটি গাছ বন বিভাগ, পরিবেশবাদী ও নগর পরিকল্পনাবিদের পরামর্শ নিয়ে নির্বাচন করা হয়েছে। আমরা যে গাছগুলো লাগাচ্ছি সেই গাছগুলোর মাধ্যমে বায়ু দূষণ কমে যাবে, এক্সট্রিম হিট কমবে, বায়োডাইভারসিটি সংরক্ষণ হবে, ভূমির ক্ষয়রোধ হবে, ছায়া দিবে এবং অর্থনৈতিকভাবে সুফল আনবে। সবচেয়ে বড় কথা জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য যে কার্বন কালো ধোঁয়া চেয়ে গেছে তা অনেকাংশে লাঘব হবে।

মেয়র আনিসুল হক সড়কের যে জায়গায় গাছগুলো লাগানো হচ্ছে সেখানে আগে নষ্ট ট্রাক পড়ে থাকতো জানিয়ে তিনি বলেন, গাছগুলোকে বাস-ট্রাক মালিক সমিতি, শ্রমিক সমিতি সকলে মিলে টেককেয়ার করবে। এখানের সড়কের মিডিয়ামে সোনালু, জারুল, রসকল লাগানো হবে। রসকল গাছের ফল পাখিদের প্রিয়, নগরের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম পাখিদের ভুলে যেতে পারে, এজন্য পাখিদের ফিরিয়ে আনতে রসকল গাছ লাগানো হচ্ছে।

মেয়র বলেন, নগরবাসীকে অনুরোধ করবো আমরা যে গাছগুলো লাগাবো সে গাছগুলোর মাথা ভেঙ্গে দিবেন না। বাচ্চাকে বড় করতে যেমন সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন তেমনি গাছগুলোর রক্ষণাবেক্ষণের জন্য আমি নগরবাসীর সহযোগিতা চাই। আমি চাই গাছগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ নিয়ে কাউন্সিলরদের মধ্য প্রতিযোগিতা হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নগরবিদ ও স্থপতি ইকবাল হাবিব, নগর পরিকল্পনাবিদ আখতার হামিদ, গ্রিন সেভার্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান রনি, বন অধিদফতরের প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমির হোসাইন চৌধুরী।

অন্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জোবায়দুর রহমান, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুহ. আমিরুল ইসলাম, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এস এম শরিফ-উল ইসলাম, ঢাকা সামাজিক বন অঞ্চলের বন সংরক্ষক আর এস এম মনিরুল ইসলাম, উপপ্রধান বন সংরক্ষক, মঈনুদ্দিন খান ও বন বিভাগের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা, ডিএনসিসির কাউন্সিলররা, আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তারা ও ডিএনসিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া