শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৫:২২ পূর্বাহ্ন

দিগপাইত প্রায় এক কি.মি. সড়কে চলাচলের অনুপযোগী, দুর্ভোগে এলাকাবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : বুধবার, ৩১ মে, ২০২৩
দিগপাইত প্রায় এক কি.মি. সড়কে চলাচলের অনুপযোগী, দুর্ভোগে এলাকাবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

জামালপুর সদর উপজেলার দিগপাইত ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের রঘুনাথপুর দিঘুলীর বড়ভিটা এলাকার খলিল মিস্ত্রির বাড়ি থেকে গাজীর মোড় পর্যন্ত প্রায় মাত্র এক কিলোমিটার কাঁচা সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় এলাকাবাসী সড়কটি সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। দীর্ঘদিন থেকে সড়কটি সংস্কারের অভাবে মাঝে মধ্যেই স্কুল, মাদরাসার শিক্ষার্থীদের সমস্যায় পড়তে হয়।

এছাড়া ছোট-খাট দুর্ঘটনার শিকার হতে হয় শিক্ষার্থীদের। এলাকাবাসী জানায়, জামালপুর সদরের দিগপাইত ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের রঘুনাথপুর দিঘুলী বড়ভিটা গাজীর মোড় এই এলাকায় প্রায় তিন শতাধিক পরিবার বসবাস করে। এই কাঁচা সড়কটি দীর্ঘদিন বেহাল অবস্থায় থাকার কারণে চরম দুর্ভোগের মধ্যে রয়েছে এলাকাবাসী।

তারা আরও জানান, বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে স্থানীয় সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোজাফ্ফর হোসেন সড়কটি সংস্কারের আশ্বাস দিলেও এখন পর্যন্ত সড়কটির কোন সংস্কার করা হয়নি। মাঝে মধ্যে স্থানীয় ইউপি সদস্যের মাধ্যমে মাটি ফেলা হয়। মাটি ফেলার কারণে সামান্য বৃষ্টি হলেই সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

এলাকার আরাফত আলীর ছেলে অটোচালক আকরাম হোসেন জানান, দিগপাইত ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের এই রাস্তাটির খুবই নাজুক অবস্থা। আমি প্রায় পাঁচ মাস ধরে অটো চালাচ্ছি। সড়কটি বেহাল অবস্থায় পড়ে আছে দীর্ঘদিন ধরে। এখন অটো নিয়ে বের হতেই পারি না। স্থানীয় ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন বাদশাকে বার বার বলা হলেও তিনি কোন কাজ করেননি। শুধু একবার কিছু মাটি ফেলছেন। কিন্তু এতে আরও সমস্যা বেড়েছে।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ব্যক্তি বলেন, প্রতিদিন এই সড়কটি দিয়ে দিঘুলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দারুলউলুম মাদরাসা, বড়ভিটা, এডভোকেট খলিলুল রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় ৩-৪ শত ছাত্র/ছাত্রী চলাচল করে থাকে। একটু বৃষ্টি হলেই এই সড়কটি দিয়ে চলাচল করতে পারে না শিক্ষার্থীরা। কিছুদিন আগে এই সড়কটি দিয়ে এক স্কুলছাত্রী যাওয়ার সময় পড়ে পা ভেঙে যায় বলে জানান তিনি।

তার দাবি দ্রুত সময়ের মধ্যে সড়কটি সংস্কার করে শিক্ষার্থীসহ এলাকার মানুষের চলাচলের উপযোগী করে দিয়ে এই দুর্ভোগ থেকে উদ্ধার করতে হবে। এলজিইডির জামালপুর সদর উপজেলা প্রকৌশলী তৌহিদুর রহমান জানান, সড়কটি এখনও এলজিইডির আওতাভুক্ত হয়নি। তবে প্রস্তাবিত তালিকায় রয়েছে।

দিগপাইত ইউপি চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) আমিনুল ইসলাম উজ্জল জানান, সড়কটির ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান অবগত আছেন। এলজিএসপির বরাদ্দ পেলে সড়কটি সংস্কার করা হবে বলেও জানান তিনি।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া