বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৮:১০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করুন: বৌদ্ধ নেতাদের রাষ্ট্রপতি সাংবাদিকরা সহায়তা করলে আদালতে মামলা কমবে : প্রধান বিচারপতি গণতন্ত্রের জন্য যে দেশ স্বাধীন হয়েছে, সে দেশে এখন আর গণতন্ত্র নেই : শামসুজ্জামান দুদু লু এলেন, ভাবলাম সম্পর্ক ভালো করতে চায় কিন্তু নিশিরাতে স্যাংশন দিলো: কাদের ১ মিনিটের ‘ঝড়’ তুললেন মাহি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচের আম্পায়ার বাংলাদেশি সৈকত অবাধ্য পর্যটক সামলাতে দেওয়াল তুলছে জাপান হিমালয়সহ পাহাড়-পর্বত রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: পরিবেশমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই : স্পিকার নির্বাচনে জিতে দুধ দিয়ে গোসল করলেন চেয়ারম্যান!

চাঁদপুরে মেঘনায় যাত্রীবাহী লঞ্চে আগুন

চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি
আপডেট : শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
চাঁদপুরে মেঘনায় যাত্রীবাহী লঞ্চে আগুন

চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি : 

চাঁদপুরের র মেঘনা নদীতে হাইমচর উপজেলার মাঝিরচরে ভোলা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী কর্ণফুলী-৩ লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার (২০ এপ্রিল) বেলা সোয়া ১১টায় চাঁদপুরের হরিণা ফেরিঘাটের কাছাকাছি মাঝেরচর নামক স্থানে ভোলা থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা কর্ণফুলী-৩ লঞ্চে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। এ সময় হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে বেশ কয়েকজন যাত্রী আহত হয়েছেন।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) চাঁদপুরের উপ-পরিচালক বশির আলী খান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, লঞ্চের ইঞ্জিন রুমে স্পার্ক থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। এতে যাত্রীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অনেকে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এরপর মাঝিরচরে লঞ্চটি ভিড়িয়ে যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হয়। পরে লঞ্চ কর্তৃপক্ষ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কর্ণফুলী-৩ এর যাত্রীদের কর্ণফুলী-৪ লঞ্চের মাধ্যমে ফেরত আনা হচ্ছে এবং বর্তমানে আগুন নিয়ন্ত্রণে আছে। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

কর্ণফুলী-৩ লঞ্চের সহকারী মাস্টার মো. রইচ উদ্দিন সুমন জানান, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কয়েক শ যাত্রী নিয়ে লঞ্চটি ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। সকাল ১০টা ১৫ মিনিটের দিকে লঞ্চটির ইঞ্জিনরুমে হঠাৎ করে আগুন লেগে যায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়ে লঞ্চটি আবাল বিল চরে নোঙর করে যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হয়। বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি।

সহকারী মাস্টার আরও জানান, আগুন লাগার পরই তা পুরো ইঞ্জিনরুমে ছড়িয়ে পড়ে। জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল করে ফায়ার সার্ভিস ও কোস্টগার্ডের সহায়তা চাওয়া হয়। চরে নামিয়ে দেওয়া যাত্রীদের কর্ণফুলী-৪ লঞ্চ ঢাকায় নিয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

এদিকে লঞ্চটিতে থাকা মনিরুল ইসলাম রুবেল নামে এক যাত্রী জানান, আগুন লাগার খবরে যাত্রীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। কেউ কেউ প্রাণ বাঁচাতে নদীতে লাফ দেন। তবে এতে বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। আগুন লাগার পরই ইঞ্জিন রুমসহ লঞ্চের নিচতলা ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে যায়।

এ বিষয়ে হাইমচর নীলকমল নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, দুর্ঘটনার পরে লঞ্চটি পাড়ে ভিড়িয়ে দেয়। লঞ্চে চার শতাধিক যাত্রী ছিল। নৌ-পুলিশ ও স্থানীয়দের প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আহতদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘কর্ণফুলী লঞ্চ কোম্পানির আরেকটি লঞ্চে ইতিমধ্যে প্রায় অর্ধেক যাত্রী উদ্ধার করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বাকি যাত্রীদের নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছানো হবে।’

এদিকে ঘটনা জানতে পেরে নৌ-পুলিশ চাঁদপুর অঞ্চলের ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া