শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ১১:১৯ অপরাহ্ন

গাজায় ৫ বছরের কম বয়সী ৮ হাজার শিশু তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪
গাজায় ৫ বছরের কম বয়সী ৮ হাজার শিশু তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 

যুদ্ধবিধ্বস্ত গাজা উপত্যকায় ৮ হাজারের বেশি শিশু তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে। তাদের সবার বয়সই পাঁচ বছরের কম। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান গতকাল বুধবার জানিয়েছেন, এই শিশুগুলোর প্রত্যেকেই অপুষ্টির কারণে তীব্র ঝুঁকিতে আছে। বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

ডব্লিউএইচওর প্রধান তেদরোস আধানম ঘেব্রেসিউস বলেছেন, এই শিশুদের মধ্যে অন্তত ২৮ জন তীব্র ক্ষুধায় মারা গেছে এবং গাজার জনসংখ্যার একটি উল্লেখযোগ্য অংশ এখন বিপর্যয়কর ক্ষুধা ও দুর্ভিক্ষের মতো পরিস্থিতির মুখোমুখি হচ্ছে। এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘খাদ্য সরবরাহ বৃদ্ধির আবেদন সত্ত্বেও বর্তমানে এমন কোনো প্রমাণ নেই যে, যাদের খাবারের সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন তারা পর্যাপ্ত পরিমাণে মানসম্পন্ন খাবার পাচ্ছে।’

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান আরও বলেন, জাতিসংঘের স্বাস্থ্য সংস্থা ও এর অংশীদারেরা অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে পুষ্টি পরিষেবাগুলো বাড়ানোর চেষ্টা করেছে। তিনি আরও বলেন, ‘পাঁচ বছরের কম বয়সী ৮ হাজারের বেশি শিশু তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে এবং তাদের চিকিৎসা চলছে। তাদের মধ্যে ১ হাজার ৬০০ জন গুরুতর তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে।’

তেদরোস আধানম ঘেব্রেসিউস আরও বলেন, ‘অপুষ্টিজনিত কারণে এরই মধ্যে ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে, যার মধ্যে ২৮ জনের বয়সই পাঁচ বছরের কম।’ তিনি আরও বলেন, ‘পশ্চিম তীরেও ক্রমবর্ধমান স্বাস্থ্যসংকট আছে। স্বাস্থ্যসেবার ওপর (ইসরায়েলি) আক্রমণ এবং চলাচলের বিধিনিষেধ, স্বাস্থ্য পরিষেবাগুলোতে প্রবেশে বাধা সৃষ্টি কারণে এমনটা হয়েছে।’

ফিলিস্তিনি যুদ্ধ বন্ধ করে শান্তি ফিরিয়ে আনার আহ্বান জানিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান আরও বলেন, ‘গাজার মতো পশ্চিম তীরেও সংকট সমাধানের একমাত্র পথ হলো শান্তি ফিরিয়ে আনা। সর্বোত্তম ওষুধ হলো শান্তি।’

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের অভ্যন্তরে হামলা চালিয়ে এক হাজার ২০০ ইসরায়েলিকে হত্যা করে ২৫০ জনকে জিম্মি করে নিয়ে আসে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। এর জবাবে অবরুদ্ধ গাজায় অভিযান শুরু করে দলখলদার বাহিনী। এতে এখন পর্যন্ত ৩৭ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন, যাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু। গাজার হামাস-নিয়ন্ত্রিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সেখানে এখন পর্যন্ত ৩৭ হাজার ২০২ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৮৪ হাজার ৯৩২ জন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া