মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০৩:০৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
১৯ জুন থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা সংবাদ সম্মেলনে দ্রুত বিচার চাইলেন পরীমনি চলে গেলেন বিশ্বের ‘সবচেয়ে বড় পরিবার’ প্রধান আদালত ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খুললে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি বিয়ে করেছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের ক্ষমাপ্রার্থনা লে. জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ নতুন সেনাপ্রধান দৃষ্টিনন্দন ৫০ মডেল মসজিদ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী মিয়ানমারে সামরিক প্লেন বিধ্বস্তে ১২ জন নিহত চোখের পানিতে শেষ বিদায় প্রিয় মাহুতকে (ভিডিও) হ্যারি-মেগানের কন্যার জন্মে রানির শুভেচ্ছা-অভিনন্দন দৌলতদিয়ায় ৭ নং ফেরিঘাটে ভাঙন শ্রাবন্তীর সঙ্গে সংসার করতে চেয়ে আদালতের রোশন চিলমারী বন্দর নিয়ে গান গাইলেন প্রধানমন্ত্রী করোনার জরুরি চিকিৎসা সরঞ্জাম পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরিবের বন্ধু: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতীয় ঋণে রেলের তিন প্রকল্প ঝুলছে এক দশক কন্যা সন্তানের বাবা মা হলেন হ্যারি মেগান সমালোচনাকে থোরাই কেয়ার করেন রাইমা গাজীপুরে শীতলক্ষ্যার মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়

এলজিইডির নির্দেশনা মানলেই পড়তে হবে খালে

নেত্রকোনা জেলা প্রতিনিধি
আপডেট : শুক্রবার, ২১ মে, ২০২১
এলজিইডির নির্দেশনা মানলেই পড়তে হবে খালে
ভুল সংকেত দেয়া এলজিইডির সড়ক

সড়কটি ডানদিকে বাঁক নিয়েছে। অথচ ওই মোড়ে নির্দেশনা লেখা রয়েছে ‘বামে মোড়’। প্রকৃতপক্ষে বামে কোনো সড়ক নেই। আছে একটি খাল। রাতের বেলায় যানবাহনের চালকরা ওই নির্দেশনা মেনে চললেই নির্ঘাত পড়তে হবে মহাবিপদে। সোজা গিয়ে পড়তে হবে ওই খালে।

এমনই এক ভুল নির্দেশনা দেওয়া রয়েছে নেত্রকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলার ঠাকুরাকোনা-ফকিরের বাজার পাকা সড়কে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) নির্মিত এ সড়কে চলাচল করতে গিয়ে বর্তমানে চরম বিভ্রান্তির শিকার হচ্ছেন ছোট-বড় বিভিন্ন যানবাহনের চালকরা। তবে স্থানীয় অনেকেই এ ভুল নির্দেশনাটি সম্পর্কে অবগত থাকলেও বিষয়টি একেবারেই অজানা বহিরাগত যানবাহনের চালকদের কাছে।

এ অবস্থায় এলজিইডির ভুল নির্দেশনার কারণে ওই স্থানে যেকোনো মুহূর্তে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। এলাকাবাসীর দাবি, অবিলম্বে যেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জনগুরুত্বপূর্ণ এ সড়কে গুরুতর ভুল নির্দেশনাটি সংশোধন করে দেয়।

স্থানীয় বাসিন্দা সোহেল খান জানান, সড়কপথে পথচারী এবং বিভিন্ন রকম যানবাহন যাতে নিরাপদে চলাচল করতে পারে, সে জন্যই মূলত এসব নির্দেশনা দেওয়া হয়ে থাকে। কিন্তু ঠাকুরাকোনা-ফকিরের বাজার সড়কে দেওয়া ভুল নির্দেশনা নিরাপত্তার বদলে মানুষকে দুর্ঘটনার কবলে ফেলবে। এ রকম গুরুতর ভুল কখনোই কাম্য নয়।

বিষয়টি নিয়ে শুক্রবার (২১ মে) দুপুরে বারহাট্টা উপজেলা প্রকৌশলী (অতিরিক্ত দায়িত্ব) আল মুতাসিম বিল্লাহর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, সড়কটি আমাদের অধীনে নয়। এটি নেত্রকোনা সদর উপজেলা প্রকৌশলীর আওতাধীন। বিষয়টি নিয়ে তার সঙ্গে কথা বলেন।

নেত্রকোনা সদর উপজেলা প্রকৌশলী লুৎফর রহমান জানান, সড়কে নির্দেশনাগুলো স্থাপন করেন সংশ্লিষ্ট ঠিকাদাররা। কিন্তু ওই সড়কের ঠিকাদার যে শ্রমিকদের দিয়ে কাজটি করিয়েছেন, মূলত তারাই এ ভুলটি করেছে। ভুল নির্দেশনাটি সংশোধন করে দিতে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে বলে দিয়েছি এবং আমি নিজেও ওই সড়ক পরিদর্শন করে সব নির্দেশনা সঠিকভাবে স্থাপন করা হয়েছে কি না, তা দেখব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া

%d bloggers like this:
%d bloggers like this: