বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০১:৩৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
করোনায় আক্রান্ত অভিনেত্রী শুভশ্রী গাঙ্গুলি এক মাসে নিয়ন্ত্রণ সম্ভব করোনা মহামারি: ডব্লিউএইচও প্রধান উড়ন্ত গাড়ি শিগগিরই আসছে যানজট থেকে বাঁচাতে দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতালে রোগী ভর্তি শুরু আরো এক সপ্তাহ বাড়ল চলমান ‘কঠোর লকডাউন’ শাহজাদপুরে নছিমন -হুন্ডা সংঘর্ষে  নিহত ২ প্রীতি জিনতা শাহরুখ খানের পারফরমেন্সে খুশি  রোববার থেকে চলবে সউদী এয়ারলাইনসের ফ্লাইট করোনা রোগীর আত্মহত্যা মুগদা হাসপাতালে শতভাগ সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছিল কবরীর ফুসফুসে কোভিড ফ্রি ট্রেন সার্ভিস ইতালিতে কিংবদন্তি অভিনেত্রী কবরী আর নেই ৩য় দিনের লকডাউন: সড়কে ঢিলেঢালা বাজারে ভিড় বিএনপিই জনগণকে প্রতিপক্ষ বানিয়ে প্রতিশোধ নিচ্ছে পুরুষে আস্থাহীনতা কুকুরকে বিয়ে ব্রিটিশ মডেলের ! ম্যাচ হেরে শাহরুখের তোপের মুখে সাকিবরা ফরিদপুরে  ইটালী প্রবাসীকে কুপিয়ে খুন ‘ভুয়া’ ডক্টরেট ডিগ্রি নিয়ে যা বললেন মমতাজ বিশ্বে প্রথমবারের মতো যমজ শিশু জন্মের রেকর্ড ডেইরি বাংলা ফুডকে ২ লাখ টাকা জরিমানা

এফ-৩৫ যুদ্ধ বিমান তৈরীতে বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার

যোগাযোগ ডেস্ক
আপডেট : শুক্রবার, ৫ মার্চ, ২০২১
এফ-৩৫ যুদ্ধ বিমান তৈরীতে বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার
সংগৃহীত ছবি

এফ-৩৫ যুদ্ধ বিমান বানিয়ে ইতিহাস গড়লেন বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার অসীম রহমান। তিনি এফ-৩৫ প্রোগ্রামের ম্যানুফ্যাকচারিং ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারোস্পেস ইন্ডাস্ট্রিতে কর্মরত। অত্যাধুনিক যুদ্ধ বিমানের কারিগর হিসাবে তার নামটি ইতিহাসে লেখা হয়ে গেছে।

অসীম রহমান নিজের দেশ ছেড়েছেন প্রায় এক দশক আগে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সেরা একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়ালেখা শেষ করে কাজ করছেন বিখ্যাত একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে।

পৃথিবীর সব ধরনের ফাইটার জেট বিমানের মধ্যে সবচেয়ে অগ্রসর মডেল ধরা হয় লকহিড মার্টিন এফ-৩৫’কে। ফাইটার বিমানটিকে নিজস্ব ঘরানার মধ্যে সবচেয়ে আধুনিক এবং টিকে থাকতে সক্ষম বলেও মনে করা হয়।

পৃথিবীর বেশিরভাগ মহাকাশ কৌতূহলীদের কাছেই এই ফাইটার জেট বানানোর প্রক্রিয়ায় যুক্ত থাকাটা স্বপ্নের মতো ব্যাপার। কিন্তু অসীম রহমানের কাছে সেই স্বপ্নই সত্যি হয়ে ধরা দিয়েছিল ২০১৯ সালের শুরুতে।

সম্প্রতি অসীম রহমান জানান, কয়েক মাস আগে হিউস্টনে একটি এয়ার শোতে নিজের এফ-৩৫ বিমান উড়তে দেখার আনন্দের কথা। সেখানে তিনি বলেন, যে যুদ্ধবিমানের সঙ্গে এত কাছ থেকে আমি জড়িত ছিলাম, সেটির কর্মদক্ষতা ও মাধুর্য দেখার মধ্যে একটা অন্য রকম গৌরবের অনুভূতি কাজ করছিল। পরে এই বিমানের পাইলটদের সঙ্গে কথা বলার অনুভূতি তো আরও দারুণ।

জানা যায়, বাংলাদেশি এই যুবক রাজধানীর সানবীমস স্কুলে প্লে-গ্রুপ থেকে এ-লেভেল পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন। আর বেড়ে ওঠা ঢাকার ধানমন্ডি ও পরে উত্তরায়। পড়াশোনার বাংলাদেশি পাঠ চুকিয়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সেরা একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়ালেখা শেষ করেন।

এরপর দীর্ঘ দিনের চেষ্টার পরে সেখানকার নাগরিকত্ব নিয়ে অসীম রহমান দেশটির অ্যারোস্পেস ইন্ডাস্ট্রিতে চাকরির সুযোগ পান। এরপরই প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে অত্যাধুনিক ফাইটার জেট এফ-৩৫ যুদ্ধ বিমান তৈরির সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। আর হয়ে যান ইতিহাসের অংশ।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক লকহিড মার্টিন হল অ্যারোস্পেস টেকনোলজি ইন্ডাস্ট্রির সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠানসমূহের একটি। এখানে তিনি ম্যানুফ্যাকচারিং ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নকশা ও উৎপাদন কার্যক্রম নিয়ে কাজ করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া

%d bloggers like this:
%d bloggers like this: