বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৬:০১ পূর্বাহ্ন

আমরা কারো সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চাই না : কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
আমরা কারো সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চাই না : কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, মিয়ানমারে চলমান সংঘাত তাঁদের অভ্যন্তরীণ। আমাদের সঙ্গে তাঁদের এ নিয়ে কোনো বিরোধ নেই। বাংলাদেশের সঙ্গে যদি মিয়ানমারের দ্বন্দ্বের কোনো বিষয় আসে, তাহলে জাতিসংঘের দৃষ্টি আকর্ষণ করব। আন্তর্জাতিক ফোরাম আছে। জাতিসংঘ যেহেতু আছে তাঁদেরও একটা ভূমিকা থাকবে। আমরা কারো সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চাই না।

মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশের কোনো বিরোধ নেই উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমাদের সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুতে যে সমস্যা, সেটা আন্তর্জাতিকভাবে সমাধানের প্রয়াস চলছে। এটা তাদের সঙ্গে আমাদের যুদ্ধের কোনো কারণ হবে না।

কাদের বলেন, আমরা তো একে অন্যের সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত না। (মিয়ানমার) তাদের ইন্টারনাল কনফ্লিক্টটা তাদের সীমান্ত পর্যন্ত গড়াচ্ছে এবং সীমান্ত থেকে ছিটকে পড়ছে মর্টার শেল, গোলা; আমাদের দুজন নাগরিক—একজন নারী ও একজন পুরুষ মারা গেছে। মিয়ানমারের ১০৪ জনের মতো সীমান্তরক্ষী বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে।

তিনি বলেন, আমরা মনে করছি, এটা মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তাদের ৫৪টার মতো এথনিক কমিউনিটি আছে। এরা বিভিন্ন জায়গা ইতোমধ্যে দখল করে ফেলেছে। সেনাবাহিনীর সঙ্গে তাদের ইন্টারনাল কনফ্লিক্ট; আমাদের সঙ্গে তাদের কোনো বিরোধ নেই। আমাদের সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুতে যে সমস্যা, সেটা আন্তর্জাতিকভাবে সমাধানের প্রয়াস চলছে। এটা তাদের সঙ্গে আমাদের যুদ্ধের কোনো কারণ হবে না। আমরা মিয়ানমারের সঙ্গে নয় শুধু—আমরা কারও সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চাই না। আমরা আলাপ আলোচনার মাধ্যমে আমাদের উদ্বেগ আমরা জানাব। তাদের বক্তব্যও শুনব। যে কোনো সমস্যা আমরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের ব্যাপারে আমাদের সিদ্ধান্ত আছে।

একজন গণমাধ্যমকর্মী দৃষ্টি আকর্ষণ করেন, এ ধরনের ঘটনা যখন ঘটে আমরা দেখি রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ হয়। যতবারই এ রকম হয়েছে, রোহিঙ্গারা স্রোতের মতো বাংলাদেশে ঢুকেছে। এবারও সে রকম আশঙ্কা আছে। যেহেতু ঘটনাটা একেবারে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী—এ ব্যাপারে কাদের বলেন, ‘আমরা নেতিবাচক কথা বলতে চাই না, আমরা ইতিবাচক। আমরা আলাপ-আলোচনাই করব। জাতিসংঘ আছে, তাদের দৃষ্টিও আমরা আকর্ষণ করব।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, মিয়ানমার সীমান্ত যা ঘটছে, তা তাঁদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তাঁদের অভ্যন্তরীণ কনফ্লিক্ট সীমান্ত পর্যন্ত গড়াচ্ছে। তাঁদের গোলা, মর্টার সেল ছিটকে পড়ছে আমাদের এখানে। আমাদের দুজন নাগরিক মারা গেছে। বাংলাদেশের নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠানো হতে পারে। সিদ্ধান্ত হলে জানানো হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা একে অন্যের সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত না। তাদের ইন্টারনাল কনফ্লিক্ট এসে সীমান্তে গড়াচ্ছে। ছিটকে এসে পড়ছে আমাদের সীমান্তে। একজন নারী ও পুরুষ মারা গেছেন। এসব ব্যাপারে আমাদের ফরেন মিনিস্ট্রি মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকেছে।’

তিনি বলেন, ‘মিয়ানমারে ৫৪টা এথনিক কমিউনিটি আছে। বিভিন্ন জায়গা তারা অলরেডি দখল করে নিয়েছে। তাদের সেনাবাহিনীর সঙ্গে অন্য গোষ্ঠীর এটা কনফ্লিক্ট। আমাদের সঙ্গে তাদের (মিয়ানমার) কোনো বিরোধ নেই।’

সংরক্ষিত মহিলা আসনে প্রার্থিতা বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সংরক্ষিত মহিলা আসনের নির্বাচন নিয়ে শনিবারের (১০ ফেব্রুয়ারি) বর্ধিত সভায় যারা থাকবেন তাদের মতামতও গ্রহণ করা হবে। কারণ, এটা মৌলিক একটা সিদ্ধান্ত। কাজেই এ ব্যাপারে সবার মতামত নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন আমাদের নেত্রী।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করছি নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের শিডিউল ঘোষণা করবে। তারপর আমরা আমাদের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে মনোনয়ন বোর্ড বসবে। আমাদের ৪৮টি আসনে প্রার্থিতা চূড়ান্ত করবে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, এস এম কামাল হোসেন, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ আবদুল আউয়াল শামীম ও উপ-দফতর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া