মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৯:৩৯ অপরাহ্ন

আওয়ামী লীগই গণতন্ত্র হত্যাকারী : ইশরাক

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ, ২০২৪
আওয়ামী লীগই গণতন্ত্র হত্যাকারী : ইশরাক

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

বিএনপির আন্তর্জাতিকবিষয়ক কমিটির সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির দাবিদার আওয়ামী লীগ স্বাধীনতার পর শতশত মুক্তিযোদ্ধা হত্যা করেছে। আওয়ামী লীগের কোনো নেতা সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নেননি। যে গণতন্ত্রের জন্য মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার লেবাসধারী আওয়ামী লীগই গণতন্ত্র হত্যাকারী।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) রাজধানীর নয়াবাজারের শামসাবাদ ঢাকা পার্টি সেন্টার ৩২নং ওয়ার্ড বিএনপি আয়োজিত এক ইফতার ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

ইশরাক হোসেন বলেন, আজকে সত্য কথা বললে, সরকারের দুর্নীতি ও লুটপাটের কথা বললে তাকে রাজাকার বলে আখ্যা দেওয়া হয়, এমনকি মুক্তিযুদ্ধের সম্মুখযোদ্ধা ও সেক্টর কমান্ডার শহীদ জিয়াউর রহমানকে নিয়েও বিতর্ক করতে তাদের দ্বিধা হয় না। আওয়ামী লীগ না করার অপরাধে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারা মূল্যায়িত করা হচ্ছে না- অথচ ’৭১ সালে যাদের জন্মই হয়নি তাদের অনেকেই আজ মুক্তিযদ্ধের সনদ দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকার রাজাকারদের বিচার করেছে। কোন রাজাকার? যারা সরকারের অন্যায়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে তাদের বিচার করা হয়েছে। অথচ অনেক চিহ্নিত রাজাকার ও তাদের পরিবারকে যখন আত্মীয় বানানো হয় তখন কোথায় থাকে নীতি আদর্শ? যখন আওয়ামী লীগ করার সুবাধে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয় না তখন কোথায় থাকে আইন?

৩২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেনের সঞ্চালনায় এতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য ওমর নবী বাবু, আরিফুর রহমান নাদিম, কোতোয়ালি থানা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ, ওয়ার্ড সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ হিমেল, ইউনিট বিএনপির সভাপতি ইউসুফ রানা, কোতোয়ালি থানা যুবদলের মোহাম্মদ রুবেল, দক্ষিণ মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. রুবেল, কোতোয়ালি মহিলা দলের আহ্বায়ক শেখ ইরানী, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শেফালী আক্তারসহ থানা ও ওয়ার্ড বিএনপির অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে কারাবন্দি, কারাগারে মৃত্যুবরণ করা, সরকারবিরোধী আন্দোলনে আহত হওয়া এবং অসুস্থ বিএনপি নেতা আনারুল আজিমের সহোদর ইমরান নাহিদ, ৩২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মেহেদী হাসান, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা রজ্জব আলী পিন্টু, ৩২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মরহুম ফকির মোহাম্মদ, ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুজন, ৩২ নম্বর ওয়ার্ড যুগ্ম-আহ্বায়ক সেন্টু, ৩৭ নম্বর ওয়ার্ড যুগ্ম আহ্বায়ক ইমু, নেতা সাহেম, ৩২ নম্বর ওয়ার্ড সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেনের বাসায় দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে ঈদ উপহার পৌঁছে দেন ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন। ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া