বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৩:১৯ পূর্বাহ্ন

অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে সিরিজ হাতছাড়া বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক
আপডেট : রবিবার, ২৪ মার্চ, ২০২৪
অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে সিরিজ হাতছাড়া বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক : 

নারী ক্রিকেটের অন্যতম পরাশক্তি অস্ট্রেলিয়ার মেয়েদের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো দ্বিপাক্ষিক সিরিজে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। কিন্ত ঘরের মাঠে অজি মেয়েদের সামনে কোনো প্রতিরোধই গড়তে পারেনি টাইগ্রেসরা। ফলে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে ক্যাঙ্গারুরা।

রোববার (২৪ মার্চ) মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাট করে ৪৪.১ ওভারে মাত্র ৯৭ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের মেয়েরা। জবাব দিতে নেমে ২৩.৫ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌছে যায় সফরকারীরা।

অস্ট্রেলিয়ার শুরুটা ছিল একটু নড়বড়ে। ২৪ রানের মধ্যে দুই ওপেনার হিলি ও ফোবি লিচফিল্ডের উইকেট হারায় তারা। পঞ্চম ওভারে রাবেয়া খানের বলে নাহিদা আক্তারকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন হিলি। এই ম্যাচেও সুবিধা করতে পারেননি অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক, ফিরেছেন ১৫ রানে।

ফাহিমা খাতুনের দারুণ এক থ্রোয়ে লিচফিল্ড ফেরেন ৫ রানে। ১৩তম ওভারে সুলতানা খাতুনের বলে নিগার সুলতানা জ্যোতির স্টাম্পিংয়ে ৮ রানে আউট হন বেথ মুনি। ৩৯ রানে টপ গুরুত্বপূর্ণ ৩ উইকেট হারিয়ে কিছুটা বিপর্যয়ে পড়ে যায় অতিথিরা।

চতুর্থ উইকেটে টাহলিয়া ম্যাকগ্রাকে সঙ্গে নিয়ে ২১ রানের জুটিতে দলীয় স্কোরটা ৬০ রানে নিয়ে যান ৩ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামা পেরি। ১০ রান করে ম্যাকগ্রা রানআউট হলে ভাঙে জুটি।

এরপর আর কোনো বিপদ না ঘটিয়ে অ্যাশলে গার্ডনারকে সঙ্গে নিয়ে ১৫৭ বল হাতে রেখে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন এলিসি পেরি। গার্ডনার ২৩ বলে ২০ ও এলিসি ৫০ বলে ৩৫ রানে অপরাজিত থাকেন। বাংলাদেশের পক্ষে সুলতানা খাতুন ও রাবেয়া খান নেন ১টি করে উইকেট।

এর আগে মেঘাচ্ছন্ন কন্ডিশনে সকালে টসে জিতে ব্যাটিং নিয়ে বাংলাদেশের দুই ওপেনার শুধু টিকেই থেকেছিলেন, সে অর্থে রান তুলতে পারেননি। ফারজানা ও সোবহানা নড়বড়ে থাকলেও অবশ্য দ্রুতই উইকেটের দেখা পায়নি অস্ট্রেলিয়া। তারা প্রথম ব্রেকথ্রু পায় নবম ওভারে, মেগান শুটকে কাট করতে গিয়ে সোবহানা মোস্তারি হন কট বিহাইন্ড।

সোবহানার উইকেটের পর ফারজানা ঢুকে যান আরও খোলসের মধ্যে, মুর্শিদার সঙ্গে উইকেটে শুধু সময় কাটানোই লক্ষ্য ছিল তাঁর। তবে সেটি ঠিক সফল হয়নি। মলিনিউকে তুলে মারতে গিয়ে মিড অফে ক্যাচ দেন তিনি ৫২ বলে ৭ রান করে। তাঁর স্ট্রাইক রেট ছিল ১৩.৪৬—বাংলাদেশি ব্যাটারদের মধ্যে কমপক্ষে ৫০ বলের ইনিংসে যা দ্বিতীয় সর্বনিম্ন।

মুর্শিদা খাতুন ও নিগার সুলতানা এরপর ফেরেন পরপর দুই ওভারে। গার্ডনারকে কাট করতে গিয়ে পয়েন্ট ক্যাচ দেন মুর্শিদা, বাংলাদেশ অধিনায়ক এলবিডব্লু হন মলিনিউর লাইন মিস করে। ২৭ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলা স্বাগতিকদের একটু আশা জুগিয়েছিলেন রিতু মনি ও ফাহিমা খাতুন। ওই দুজন ব্যাটিংয়ের সময়ই ইনিংসে ব্যাট থেকে প্রথম বাউন্ডারিটি আসে ২০তম ওভারে, সোফি মলিনিউর বলে মারেন ফাহিমা। তবে তাঁদের ৩৬ বলে ২৫ রানের জুটি প্রবল ধস ঠেকাতে পারেনি কিছুতেই। নিজেদের ইতিহাসের সর্বনিম্ন ৬০ রানের স্কোরও চোখ রাঙাচ্ছিল তখন।

৯ রানের মধ্যে এরপর পড়েছে ৪ উইকেট। মলিনিউকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে ডিপ স্কয়ার লেগে রিতু মনির পর অ্যালানা কিংয়ের বলে স্কয়ার লেগে ক্যাচ দেন ফাহিমা। জর্জিয়া ওয়ারেহামের শিকার এরপর স্বর্ণা আক্তার ও রাবেয়া খান। নাহিদা আক্তার, সুলতানা খাতুন ও স্বর্ণা আক্তার অবশ্য এরপর একটু অপেক্ষায় রাখেন অস্ট্রেলিয়াকে। নয়ে নামা নাহিদাই করেন ইনিংস-সর্বোচ্চ ২২ রান। শেষ ২ উইকেটে আসে ৩৬ রান। ৪৪.১ ওভারেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। এ নিয়ে দশম বার ১০০-এর নিচে অলআউট হলো বাংলাদেশ।

অজিদের পক্ষে ১০ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকার করে ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন সোফি মলিনিউ। ২ উইকেট পেয়েছেন অ্যাশলি গার্ডনার, অ্যালানা কিং এবং জর্জিয়া ওয়্যারহ্যাম। একটি উইকেট মেগান শ্যুটের।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আবহাওয়া